মুন্সীগঞ্জে আ’লীগের একাধিক প্রার্থী সুবিধাজনক স্থানে বিএনপি

কাজী দীপু, মুন্সীগঞ্জ: মুন্সীগঞ্জের ৬টি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৪৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। বিএনপি, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ছাড়াও সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন বঞ্চিত, দলীয় বিরোধ ও পারিবারিক দ্বন্দ্বে একই পরিবার থেকে একাধিক প্রার্থী ও মুক্তিযোদ্ধারাও প্রার্থী হয়েছেন। এমনকি আ’লীগ থেকে একক প্রার্থী নির্ধারণ করা হলেও মাঠে রয়েছে বিদ্রোহী প্রার্থীও। এদিকে প্রচারে আ’লীগ প্রার্থীরা নির্বাচনী এলাকাকে সরগরম করে তুললেও বিএনপি প্রার্থীরা রয়েছে নীরব।

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলা: এ উপজেলায় ৯ জনের প্রার্থী তালিকায় চাচা-ভাতিজাসহ ৪ জনই আ’লীগ ঘরানার চেয়ারম্যান প্রার্থী। সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন বঞ্চিত জেলা আ’লীগের সাবেক সহসভাপতি আনিছুজ্জামান আনিছ (দোয়াত কলম) এখানে সর্বাধিক আলোচিত প্রার্থী। আর ২ চাচার বিরুদ্ধে প্রার্থী হয়েছেন জেলা আ’লীগের সভাপতি মোহাম্মদ মহিউদ্দিনের বড় ছেলে ফয়সাল আহমেদ বিপ্লব (দেয়াল ঘড়ি) নিয়ে।

এছাড়া মোল্লাকান্দি ইউনিয়ন আ’লীগ সভাপতি শাহ আলম মল্লিক-মাছ মার্কা নিয়ে নির্বাচন করছেন। অন্যদিকে বিএনপির ৩ প্রার্থীর মধ্যে সাবেক সাংসদের ভাই আব্দুল মতিনের নির্বাচনী প্রচারণা নেই। শহর বিএনপির সভাপতি শাহজাহান সিকদার শেষ মুহূর্তে ছাতা মার্কা নিয়ে প্রচারণায় নেমেছেন। তবে বিএনপির একক প্রার্থী হতে যাচ্ছেন এডভোকেট সালাউদ্দিন খান স্বপন।

টঙ্গীবাড়ী উপজেলা: এ উপজেলায় ৯ চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে ৫ জনই আওয়ামী লীগের। সম্প্রতি তৃণমূল নেতাকর্মীদের ভোটে উপজেলা আ’লীগ সভাপতি জগলুল হালদার ভুতু (মাছ) একক প্রার্থী ঘোষিত হলেও জেলা আ’লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক কাজী ওয়াহিদ-রিকশা প্রতীক নিয়ে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে।

এখানে বিএনপির একক প্রার্থী আবু বাক্কার মল্লিক (দোয়াত কলম) বিকল্পধারা, বাংলাদেশের সাজু কামাল(টেলিফোন), আরশাদ ইকবাল (দেয়াল ঘড়ি) ও মুক্তিযোদ্ধা গোলাম কবির সিকদার (চেয়ার) প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

লৌহজং উপজেলা: এ উপজেলায় ৩ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী। উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ফকির মো. আব্দুল হামিদ ( ছাতা) ও সদ্য আ’লীগে যোগদানকারী মো. ওসমান গনি তালুকদার (চেয়ার মার্কা) নিয়ে নির্বাচন করছেন। এখানে আনারস মার্কা নিয়ে নির্বাচন করছেন বিকল্পধারা বাংলাদেশের উপজেলা আহবায়ক মো. শওকত আলী বেপারী। বিএনপির কোন প্রার্থী এখানে নেই।

সিরাজদিখান উপজেলা: এ উপজেলায় ৫ জন চেয়াম্যান প্রার্থী। তবে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বি উপজেলা আ’লীগ সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ(আনারস) ও বিএনপি সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস ধীরেন(মাছ) প্রতীক নিয়ে দুই দলের একক প্রার্থী। এছাড়া সালাম সরকার(চেয়ার) ও শাহজাহান (ছাতা) প্রতীক নিয়ে জাতীয় পার্টি থেকে নির্বাচন করছেন। দেয়াল ঘড়ি প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন মোজাম্মেল তালুকদার।

শ্রীনগর উপজেলা: এ উপজেলায় ৯ জন প্রার্থী হলেও কেন্দ্রীয় মুক্তিযোদ্ধা দলের সহসভাপতি কাজী আজিজুল হক লেবু (দেয়াল ঘড়ি) ও শ্রীনগর উপজেলা আ’লীগ সহসভাপতি বেলায়েত হোসেন ঢালী(আনারস) প্রতীক নিয়ে বিএনপি ও আওয়ামীলীগের একক প্রার্থী। তা সত্ত্বেও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা জাকির হোসেন (রিক্সা), আ’লীগ নেতা শাহজাহান মিঞা (ছাতা), নুর মোহাম্মদ (দোয়াত কলম), শামসুল আলম (চাকা) এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আওলাদ হোসেন (চেয়ার), ইদ্রিস খান (কাপ পিরিচ)ও সাইফুল ইসলাম (মাছ) প্রতীক পেলেও তারা অনেকটা নীরব রয়েছেন।

Leave a Reply