আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের হুমকি : মুন্সীগঞ্জে ৬০ ইউপি চেয়ারম্যান আতংকে

মুন্সীগঞ্জে বিএনপি সমর্থিত দুই ইউপি চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের হামলার শিকার হওয়ায় জেলার ৬৭টি ইউনিয়নের মধ্যে ৬০টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যানরা এখন আতংকে ভুগছেন। জেলার বেশিরভাগ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত থাকায় তারা এখন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সাবেক চেয়ারম্যানদের টার্গেটে পরিণত হয়েছেন। আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা বর্তমানে ভিজিএফ কার্ডের চাল বিতরণসহ বিভিন্ন কাজে দলীয় প্রভাব খাটিয়ে সুবিধা আদায়ের চেষ্টা করছে। যেসব চেয়ারম্যান তাদের কথামতো কাজ করছেন না তাদের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তোলে হয়রানিসহ মারধরের হুমকি-ধামকি দিচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। ১৪ মে জেলা আইন-শৃংখলা সভায় ইউপি চেয়ারম্যানদের ওপর হামলার ঘটনায় নিন্দা প্রকাশ করা হলেও অপর ইউপি চেয়রম্যানদের আতংক কাটেনি।
১০ মে মুন্সীগঞ্জ সদরের মহাকালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সোনা মিয়া বেপারীকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর জখম করেছে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা। চৌধুরীবাজারস্থ ইউনিয়ন পরিষদ থেকে রিকশাযোগে নিজ বাড়িতে ফেরার পথে পালবাড়ি এলাকার রাস্তায় তিনি হামলার শিকার হন। আওয়ামী লীগ নামধারী সন্ত্রাসীদের কথা অনুযায়ী চাল বিতরণ করতে না চাইলে তার ওপর এ হামলা চালানো হয়। এর কিছুদিন আগে মুন্সীগঞ্জ পৌরসভার মুন্সীরহাট বাজারে চরকেওয়ার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবদুল হাকিম মিজিকে মারধর করে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাবেক চেয়ারম্যান রতন মৃধার লোকজন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপি সমর্থিত একাধিক ইউপি চেয়ারম্যান জানান, আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের তালিকা অনুয়ায়ী ভিজিএফ, ভিজিডি, বয়স্ক ভাতাসহ বিভিন্ন কাজ করতে চাপ প্রয়োগ করা হচ্ছে। তাদের কথামতো কাজ না করলে এর পরিণাম ভালো হবে না বলে হুমকি দেয়া হচ্ছে। এ কারণে প্রতিটি ইউপি চেয়ারম্যান বর্তমানে আতংকের মধ্যে কাজ করছেন।

Leave a Reply