ধলেশ্বরী নদীর মুক্তারপুর সেতু এলাকায় অবৈধ বালু উত্তোলন, সাতটি ড্রেজার আটক ও মামলা

মুন্সীগঞ্জের ধলেশ্বরী নদীতে মুক্তারপুর সেতু ঘেঁষে অবৈধ বালু উত্তোলনের অভিযোগে গত মঙ্গলবার রাতে ৭টি ড্রেজার আটকসহ বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। তবে মামলার কোনো আসামি এখনো গ্রেফতার হয়নি। দীর্ঘদিন ধরে মুক্তারপুর সেতুর ৫০০ মিটারের মধ্যে শত শত ড্রেজারের মাধ্যমে অবাধে বালু উত্তোলনের মহা উৎসব চলছে। এ কারণে ঢাকা-মুন্সীগঞ্জ সড়কে ২০০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত মুক্তারপুর সেতু হুমকির মধ্যে পড়েছে।

পুলিশ জানায়, অবৈধভাবে বালু উত্তোলনকারীদের ঢাকা-মুন্সীগঞ্জ সড়কের মুক্তারপুর এলাকার ধলেশ্বরী নদীর ওপর নির্মিত সেতুর ক্ষতি সাধন, রাজস্ব ফাঁকি ও নৌ-চলাচলে বিঘœ ঘটানোর অভিযোগ আনা হয়েছে দায়েরকৃত মামলায়। সদর উপজেলার পঞ্চসার ইউনিয়নের সহকারী ভূমি কর্মকর্তা বাদী হয়ে গত মঙ্গলবার রাতে অবৈধ বালু উত্তোলন কারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স সকাল-সন্ধা এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী মো. হাসিবুর রহমানের বিরুদ্ধে সদর থানায় মামলাটি দায়ের করেন। এর আগে সন্ধ্যায় জেলা ভূমি কর্মকর্তা কানুনগো মো. গোলাম মোস্তফা ও মুক্তারপুর ফাঁড়ি পুলিশ ধলেশ্বরী নদীতে মুক্তারপুর সেতু এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৭টি ড্রেজার আটক করেন।

সদর থানার ওসি শহীদুল ইসলাম জানান, অবৈধ বালু উত্তোলনের কারনে ষষ্ঠ বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সেতু হুমকির সম্মুখীন হয়ে পড়েছে। সেতুর আধা কিলোমিটার এলাকা জুড়ে একশ্রেণীর বালুখেকোরা ভূমি মন্ত্রণালয় থেকে রয়ালিটি আনা হয়েছে বলে বালু উত্তোলন করছিলেন। কিন্তু তারা কোনো কাগজ দেখাতে পারেননি।

[ad#co-1]

Leave a Reply