যৌতুক : মুন্সীগঞ্জে গৃহবধূ নির্যাতন

‘ওরা বার বার টাকা এনে দিতে বলে। আমি কোন্থেকে টাকা আনমু বললেও ওরা মানতে চায় না। বলে বাপের বাড়ির জমিগুলান বিক্রি করে টাকা আনবি। আমি টাকা দিতে পারমু না বলতেই ওরা এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি-লাথি মারতে থাকে। একসময় হাঁপিয়ে উঠে। তবু ওদের মার থামে না।’_ যৌতুকের টাকার দাবিতে স্বামী, শাশুড়ি ও দেবর-ননদের নির্যাতনের শিকার হয়ে হাসপাতালের বেডে যন্ত্রণায় কাতর মুন্সীগঞ্জের গৃহবধূ সুমনা আক্তার ময়না (২৬) বৃহস্পতিবার বিকেলে সাংবাদিকদের কাছে এ কথাগুলো বলে। ঘটনাটি ঘটেছে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার মহাকালী ইউনিয়নের উত্তর কেওয়ার গ্রামে। গত বুধবার রাতে গৃহবধূ ময়নার ওপর ওই নির্যাতন হয়েছে।

এদিকে, এ ঘটনায় মুন্সীগঞ্জ সদর থানায় বৃহস্পতিবার স্বামী মাসুম খান, শ্বশুর আহাম্মদ খান, শাশুড়ি মাসুদা বেগম, দেবর কাজল ও ননদ লিপি বেগমের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সদর থানার ওসি শহীদুল ইসলাম জানান, স্বামী মাসুম মালয়েশিয়া যাওয়ার পর থেকেই শ্বশুরবাড়ির লোকজন নগদ ২ লাখ টাকা দাবি করে। ওই টাকা দিতে না পারলে প্রায়ই সুমনাকে অপমান ও চড়-থাপ্পর মারা হতো। সম্প্রতি স্বামী মাসুম দেশে ফিরলে অপমানের মাত্রা বেড়ে যায়। গত বুধবার রাত ৮টার দিকে স্বামী, শ্বশুর-শাশুড়ি ও দেবর-ননদরা মিলে সুমনার ওপর চড়াও হয়ে টানা কয়েক ঘণ্টা নির্যাতন চালায়।

[ad#co-1]

Leave a Reply