আজাদ হত্যাচেষ্টা পুনঃতদন্তের নির্দেশ

haলেখক-অধ্যাপক হুমায়ুন আজাদ হত্যাচেষ্টা মামলাটি আবার তদন্ত হবে। বাদিপক্ষের আবেদনে মঙ্গলবার ঢাকার হাকিম আদালত পুলিশকে এ নির্দেশ দিয়ে আগামী ২০ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলেছে। এ মামলায় প্রকৃত আসামিদের অভিযোগপত্রে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি অভিযোগ করে বাদি মঞ্জুর কবির গত ৬ অক্টোবর আবার তদন্তের আবেদন করেন।

ওই আবেদনের শুনানির পর মঙ্গলবার ঢাকার ১ নম্বর অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম মো. এহ্সানুল হক পুনঃতদন্তের নির্দেশ দেন।

আদালতের আদেশে আগামী ২০ ডিসেম্বরের মধ্যে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগকে (সিআইডি) তদন্ত করে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়।

বাদির আইনজীবী আয়াত আলী পাটোয়ারী বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, আদালত মামলাটি পুনঃতদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

২০০৪ সালের ২৭ ফেব্র”য়ারি রাতে একুশে বইমেলা থেকে ফেরার পথে বাংলা একাডেমির উল্টো দিকের ফুটপাতে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হন বহুমাত্রিক লেখক ড. হুমায়ুন আজাদ।

তার ছোটভাই মঞ্জুর কবির পরদিন অজ্ঞাতদের আসামি করে রমনা থানায় মামলা করেন।

২০০৭ সালের ১৪ নভেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র দেন পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ-সিআইডি’র পরিদর্শক কাজি আব্দুল মালেক।

এতে জামায়াতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশ-জেএমবি নেতা শায়খ আবদুর রহমান, তার ভাই আতাউর রহমান সানী, নূর মোহাম্মদ সাবু ওরফে শামীম, মিনহাজ ওরফে শফিক ওরফে শাওন ওরফে হামিম ও আনোয়ার আলম ওরফে খোকা ওরফে ভাগ্নে শহীদকে অভিযুক্ত করা হয়।

তবে অন্য মামলায় শায়খ রহমান ও সানীর ফাঁসি কার্যকর হওয়ায় তাদের এ মামলা থেকে অব্যাহতির আবেদন জানান তদন্ত কর্মকর্তা। বাকি তিনজনের মধ্যে একমাত্র মিনহাজকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

বর্তমানে মামলাটি সাক্ষ্য গ্রহণের পর্যায়ে রয়েছে।

সন্ত্রাসী হামলার শিকার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক হুমায়ুন আজাদ কিছুটা সুস্থ হওয়ার পর ওই বছরের ১১ আগস্ট জার্মানিতে মারা যান।

Leave a Reply