পদ্মা সেতুতে সহায়তা দেবে কাতার

শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী হামাদের আশ্বাস
কাতার পদ্মা সেতু নির্মাণ এবং দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে সার্বিক সহায়তা দেবে। এছাড়া নদী খননের জন্য বাংলাদেশকে ড্রেজার প্রদান করবে। দেশটির উচ্চ পর্যায়ের এক ব্যবসায়ী প্রতিনিধি দল আগামী বছরের প্রথমভাগে বাংলাদেশ সফর করে বিনিয়োগের খাতসমূহ চিহ্নিত করবে এবং সে ব্যাপারে কাতার সরকারের কাছে প্রতিবেদন পেশ করবে। গত রবিবার রাতে কাতারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হামাদ বিন জসিম বিন জবর আলী থানি তার বাসভবনে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠককালে এই প্রতিশ্রুতি দেন।

শেখ হাসিনা সুইডেনের রাজধানী স্টকহোম থেকে এক সরকারি সফরে কাতার পৌঁছে বিমানবন্দর থেকে সরাসরি সে দেশের প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে যান। মোটর শোভাযাত্রা সহকারে তাঁকে কাতারের প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে নিয়ে যাওয়া হলে শেখ হামাদ তাকে অভ্যর্থনা জানান।

অত্যন্ত সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কাতারে কর্মরত বাংলাদেশের শ্রমিকদের সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি এবং আরো জনশক্তি নেয়ার অনুরোধ জানান। জবাবে কাতারের প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ থেকে আরো জনশক্তি নেয়ার ব্যাপারে আশ্বাস দেন।

বৈঠকশেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব আবুল কালাম আজাদ সাংবাদিকদের জানান, কাতারের প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের শ্রমিকদের দক্ষতা, শৃঙ্খলাবোধ এবং সততার প্রশংসা করেন।

বৈঠকে দ্বিপাক্ষিক, পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয় ছাড়াও বৈশ্বিক উষ্ণায়নের কারণে জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে তাদের আলোচনায় স্থান পায়। কাতারের প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘে সাধারণ পরিষদের অধিবেশন, স্টকহোমে অনুষ্ঠিত ইউরোপীয় উন্নয়ন দিবস এবং জেনেভায় জলবায়ু সম্মেলনে শেখ হাসিনার ভাষণের প্রশংসা করেন। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আরো উন্নত ও সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে যাবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বাংলাদেশের সৃষ্ট সমস্যা কাতারের প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করেন। এই সমস্যা মোকাবিলায় নদী খনন, উপকূলীয় অঞ্চলে সবুজ বেষ্টনি গড়ে তোলা, খাদ্য নিরাপত্তা প্রদান ও আশ্রয় কেন্দ্র নির্মাণসহ বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা এসব প্রকল্প বাস্তবায়নে কাতারের সহায়তা চান। শেখ হামাদ তাকে সব ধরনের সহায়তা প্রদানের আশ্বাস দেন। এছাড়া তাদের আলোচনায় বাংলাদেশে গ্যাস উত্তোলনের বিষয়টিও গুরুত্ব পায়।

শেখ হাসিনা আলোচনাকালে কাতারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হামাদকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান। কাতারের প্রধানমন্ত্রী আমন্ত্রণ গ্রহণ করে সুবিধামত সময়ে বাংলাদেশ সফর করবেন বলে শেখ হাসিনাকে জানান। আলোচনা শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সম্মানে কাতারের প্রধানমন্ত্রী এক নৈশভোজের আয়োজন করেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি, বন ও পরিবেশ প্রতিমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, পররাষ্ট্র সচিব মিজারুল কায়েস, প্রেস সচিব আবুল কালাম আজাদ, রাষ্ট্রদূত জিয়াউদ্দিন ও কাতারে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত শাহাদত হোসেন এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

[ad#co-1]

Leave a Reply