মাওয়া-মাঝিকান্দি রুটে ফেরি বন্ধ কাওড়াকান্দি রুটেও বন্ধের উপক্রম

নাব্যতা সংকটে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে মাওয়া-মাঝিকান্দি রুটে। মাওয়া-কাওড়াকান্দি রুটে ক্রস চ্যানেলটিও বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। এতে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন ঘরমুখো মানুষ।

শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি জানান, নাব্যতা সংকটে মাওয়া-মাঝিকান্দি রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এছাড়াও মাওয়া-কাওড়াকান্দি রুটেও নাব্যতা সংকটের কারণে সব ধারণ ক্ষমতার চেয়ে কমসংখ্যক যানবাহন নিয়ে ফেরি চলাচল করছে। এতে শরীয়তপুরসহ ৩ জেলার এবং দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার ঈদে ঘরমুখো যাত্রীরা চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন।

বিআইডব্লিউটিএ কাওড়াকান্দি ঘাট সূত্র জানায়, নাব্যতা সংকটের কারণে সোমবার রাত থেকে মাওয়া-মাঝিকান্দি রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ফলে এ রুটের ফেরি কাঁঠালবাড়ী ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী ঘাট দিয়ে চলাচল শুরু করে। ফলে শরীয়তপুরসহ ৩ জেলার ঘরমুখো যাত্রীরা চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন।

এদিকে পদ্মায় অব্যাহত হারে পানি কমতে থাকায় মাওয়া-কাওড়াকান্দি রুটের ফেরিগুলোও কমসংখ্যক যানবাহন নিয়ে পারাপার হচ্ছে। ফলে উভয় ঘাটে যানজট দেখা দিয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কাওড়াকান্দি ঘাটে গরু বোঝাই ট্রাকসহ ২ শতাধিক যানবাহন আটকা পড়েছে।

বিআইডব্লিউটিএ’র সহকারী পরিচালক জানান, নাব্যতা কমে যাওয়ায় মাঝিকান্দি ঘাট বন্ধ করে কাঁঠালবাড়ী ঘাট চালু করা হয়েছে। ড্রেজিং শুরু হয়েছে। ২-১ দিনের মধ্যেই মাঝিকান্দি ঘাটটি আবারও চালু হবে।

লৌহজং প্রতিনিধি জানান, দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার প্রবেশদ্বার বলে খ্যাত লৌহজং উপজেলার মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটে নাব্যতা সংকটের কারণে নৌযান চলাচলে বিঘœ ঘটছে। এতে ঈদে ঘরমুখো মানুষের দুর্ভোগ চরমে। চরম ভোগান্তিতে পড়ছে হাজারও যাত্রী। অন্যদিকে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সড়কপথে মানুষের চাপ পড়বে। সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থাতেও বিপর্যয়ের আশংকা করা হচ্ছে।

এদিকে আজ থেকে মাওয়া ফেরিঘাট এলাকার সব বাসস্ট্যান্ড মাওয়া চৌরাস্তায় সরিয়ে নেয়া হবে। ভোর হতেই ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কের সব লোকাল বাস মাওয়া চৌরাস্তা এলাকায় যাত্রী ওঠানামা করাবে। কোন অবস্থাতেই এসব বাস মাওয়া ঘাট এলাকায় প্রবেশ করতে পারবে না। তাছাড়া ওষুধ ও কাঁচামালের ট্রাক ছাড়া সব পণ্য বোঝাই ট্রাককে সকালে মাওয়া থেকে ১০ কিলোমিটার দূরে শ্রীনগর উপজেলার ছনবাড়ী নামক স্থানে আটকে দেয়া হবে।

[ad#co-1]

Leave a Reply