মুন্সিগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধার বসতবাড়ি দখল করার চেষ্টা

মুন্সিগঞ্জ শ্রীনগর উপজেলার তন্তুর ইউনিয়নের ব্রাহ্মণখোলা গ্রামের বৃদ্ধ মুক্তিযোদ্ধা হাজী নুর মোহাম্মদ হাওলাদারের বসত বাড়িসহ প্রায় সাড়ে তিন একর জমি আত্মসাতের চেষ্টা করা হয়েছে। সম্প্রতি তার বাড়ির কিছু জায়গা ঘর উঠিয়ে ও টয়লেট তৈরি করে দখল করে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই মুক্তিযোদ্ধা সরকারী চাকরি থেকে অবসর নেয়ার পর অসুস্থ অবস্থায় বর্তমানে ঢাকার মিরপুরের পাইকপাড়ায় বসবাস করছেন। তিনি বসত ভিটা উদ্ধারের জন্য প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরসহ বিভিন্ন স্থানে আবেদন করছেন।

নুর মোহাম্মাদের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, তার পিতা বাহারুল্লাহর মৃত্যুর সময় ৩ ছেলে ২ মেয়ে রেখে যান। তিনি জীবিত থাকা অবস্থায়ই তার দুই কন্যাকে একটি বাড়ি দিয়ে যান। মৃত্যুর পর হাজী নুর মোহাম্মদসহ তিন ভাই তার পিতার বসত বাড়িসহ জমি ভাগ করে নেন। সরকারি চাকরিতে কর্মরত থাকায় নুর মোহাম্মদ তার নিজ বাড়িতে স্থায়ীভাবে বসবাস করতে পারেননি। এই সুযোগে এলাকার কিছু চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের সহযোগিতায় তার ভাতিজা আল আমিন ও ছোটে বোনের জামাই খায়ের, বড় ভাইয়ের মেয়ের জামাই রফিক মৃধাসহ কয়েকজন তার জায়গা দখল করার চেষ্টা চালায়। বিভিন্ন সময় তার বাড়ির বিভিন্ন ধরনের গাছ কেটে নিয়ে যায় বলে জানা যায়। গ্রাম্য শালিসের মাধ্যমে এ ঘটনার একাধিকবার বিচার চেয়েও বিচার পাননি তিনি।

এই মুক্তিযোদ্ধা অসুস্থ অবস্থায়ই তার বসতভিটা উদ্ধারের জন্য এলাকার জনপ্রতিনিধিসহ বিভিন্ন মানুষের ধারে ধারে ঘুরছেন। হাজী নুর মোহাম্মদ তার ছোট বেলার স্মৃতি বিজড়িত তেতুল গাছ কেটে নেয়ার কথা ইত্তেফাককে বর্ণনা দিতে গিয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। তিনি তার সম্পত্তি রক্ষা করতে এলাকার জনপ্রতিনিধি স্থানীয় প্রশাসনসহ সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। এ ব্যাপারে শ্রীনগর উপজেলা চেয়ারম্যান বেলায়েত হোসেন ঢালী ইত্তেফাককে জানান, বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করা হচ্ছে।

[ad#co-1]

Leave a Reply