মাওয়ায় ফেরি ভাঙচুর করেছে সি বোট শ্রমিকরা

কাজী দীপু, মুন্সীগঞ্জ থেকে: মুন্সীগঞ্জে মাওয়া ফেরি ঘাটে যশোর ফেরির ধাক্কায় সি বোট ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় গতকাল শ্রমিকরা সি বোট ভাঙচুর করেছে। এতে ২ লক্ষ্যাধিক টাকা ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে। পুলিশ ও স্থানীয় সি বোট শ্রমিকরা জানায়, গতকাল বেলা সাড়ে ১২টায় যশোর ফেরি মাওয়া-১ নং ঘাটে ভিড়ানোর সময় সি বোটকে ধাক্কা দেয়। এ সময় বিক্ষুদ্ধ শ্রমিকরা ওই ফেরিতে হামলা চালায় এবং ভাঙচুর করে। পরে পুলিশ ও স্থানীয় প্রশাসন এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ফেরির সারেং শাহজাহান, সুকানি জামাল, ফারুক, ইব্রাহীমসহ কমপক্ষে ১০ আহত হয়েছেন। আহতদের স্থানীয় হাসপাতাল ও ঢাকায় চিকিৎসার জন্য নেয়া হয়েছে। এদিকে সন্ধ্যায় ফেরি কর্তৃপক্ষ অনির্দিষ্টকালের জন্য মাওয়া-কাওড়াকান্দি রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ ঘোষণা করে । এতে ঢাকার সঙ্গে দক্ষিণাঞ্চলের ২১ টি জেলায় যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে এবং উভয়দিকে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।
আমাদের সময়
———————————————————–

মাওয়ায় ফেরির আঘাতে তিনটি স্পিডবোট ডুবেছে হামলা, ভাঙচুর

মুন্সিগঞ্জের লৌহজং উপজেলার মাওয়ায় পদ্মা নদীর তীরে গতকাল রোববার একটি ফেরির আঘাতে তিনটি স্পিডবোট ডুবে গেছে। এর জের ধরে স্পিডবোটের মালিক, শ্রমিকেরা ও আশপাশের লোকজন ওই ফেরি ও ফেরিতে থাকা একটি মাইক্রোবাস ভাঙচুর করে। এ সময় তাদের মারধরে ফেরির মাস্টারসহ ছয়জন আহত হন।
মারধরের প্রতিবাদে ফেরির কর্মকর্তা ও শ্রমিকেরা গতকাল সন্ধ্যা ছয়টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত ধর্মঘট পালন করে মাওয়া-কাওড়াকান্দি রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখেন।

আহত ব্যক্তিরা হলেন ফেরির মাস্টার শাহজাহান, সুকানি জামান, বাবুর্চি আবদুল করিম ও ইব্রাহীম, লস্কর ফয়েজ ও কাঞ্চন। তাঁদের স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ঢাকায় চিকিত্সার জন্য পাঠানো হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শরীয়তপুর থেকে ছেড়ে আসা একটি ফেরি দুপুর ১২টার দিকে মাওয়া ঘাটে নোঙর করার চেষ্টা করে। কিন্তু ফেরিটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মাওয়া ঘাটের স্পিডবোটগুলোর ওপর উঠে যায়। এতে তিনটি স্পিডবোট ভেঙে পানিতে ডুবে যায়। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে স্পিডবোটের চালক, শ্রমিক ও আশপাশের লোকজন ফেরিতে গিয়ে কেবিন ও গ্লাস এবং একটি মাইক্রোবাস ভাঙচুর করে। তাদের মারধরে আহত হন ছয়জন।

এ সময় প্রাণরক্ষার্থে ফেরিতে থাকা যাত্রী মোকারম হোসেন ঢাকায় প্রথম আলো কার্যালয়ে ফোন করে সাহায্য চান। তিনি জানান, ফেরিটি ঘাটে ভিড়তে গিয়ে স্পিডবোটের ওপর উঠে য়ায়। এ ঘটনায় স্পিডবোট ও আশপাশ থেকে লোকজন এসে ফেরির ওপর হামলা চালায়।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) মাওয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক মো. সিরাজুল হক জানান, স্পিডবোটের লোকজনদের হামলায় ফেরির ছয়জন গুরুতর আহত হয়। এ ঘটনায় বিআইডব্লিউটিসির কর্মীরা সন্ধ্যা ছয়টা থেকে ধর্মঘট পালন করে। পুলিশ হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিলে রাত ১০টার দিকে ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হয়।

প্রথম আলো

[ad#co-1]

Leave a Reply