মাওয়া-কাওড়াকান্দি ঘাট স্থানান্তরের নির্দেশ

মাওয়া-কাওড়াকান্দি রম্নটে সূর্যাস্তের আধা ঘণ্টা আগে থেকে স্পিডবোট চলাচল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। মাওয়া-কাওড়াকান্দি রম্নটে লঞ্চ ভাড়া পূর্বের ১২ (বার) টাকাই নির্ধারিত থাকবে। নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খানের সভাপতিত্বে বৃহস্পতিবার বিকেলে নৌ মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বৈঠকে মাওয়া-কাওড়াকান্দি রুটে চলাচলকারী লঞ্চ ও স্পিডবোট মালিকরা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে নৌমন্ত্রী আজ শুক্রবার মাওয়া পয়েন্টের বর্তমান স্পিডবোট ঘাট স্থানানত্মর করার নির্দেশ দিয়েছেন। পহেলা মার্চ থেকে মাওয়া ও কাওড়াকান্দি উভয় ঘাট থেকে স্পিডবোটে যাত্রী পারাপার করার নির্দেশ দেয়া হয়। ফেরি বা লঞ্চের সঙ্গে কোন স্পিডবোট বাধতে নিষেধ করেন তিনি।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, মাওয়া-কাওড়াকান্দি রম্নটে স্পিডবোট চলাচলের ৰেত্রে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের উপসচিবকে (টিএ) আহ্বায়ক করে একটি কমিটি গঠন করা হবে। কমিটিতে মুন্সীগঞ্জ, মাদারীপুর ও শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার, বিআইডবিস্নউটিএ, সমুদ্র পরিবহন অধিদফতর, লঞ্চ ও স্পিডবোট মালিক সমিতির প্রতিনিধি থাকবে। কমিটি উক্ত রম্নটে যাত্রী পরিবহনে স্পিডবোটের ভাড়াও নির্ধারণ করবে।

মাওয়া-কাওড়াকান্দি রম্নটে লঞ্চের ভাড়া বৃদ্ধির বিষয়টি লঞ্চ মালিকদের আবেদনের প্রেৰিতে পরবর্তীতে বিবেচনা করা হবে। লঞ্চের সবকিছু আপগ্রেড করা সাপেৰে রাতে উক্ত রম্নটে লঞ্চ চলাচল করতে পারবে। মাওয়া নৌবন্দরে দ্রম্নত ‘ওয়ান স্টপ’ সার্ভিসের ব্যবস্থা করা হবে।

[ad#co-1]

Leave a Reply