টঙ্গীবাড়ী সিরাজ কোল্ডস্টোরেজে আলু পচন

টঙ্গীবাড়ী উপজেলার আলদী বাজারে শিরাজ কোল্ডস্টোরেজে আলুর ব্যাপক পচন ধরেছে। এ সংবাদ এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে এই কোল্ডস্টোরেজে আলু সংরক্ষণকারী কৃষক ও ব্যবসায়ীরা বিপাকে পড়েছেন। অনেকে কান্নায় ভেঙে পড়েন।

কৃষক ও আলু ব্যবসায়ীরা এর ক্ষতিপূরণ চেয়ে উপজেলা প্রশাসনের কাছে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন। ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, শ্রমিক রফিকুল ইসলাম কোল্ডস্টোরেজ় থেকে পচা আলু নিয়ে খালের পানিতে ফেলছেন। হাজার হাজার বস্তা আলু স্টোরেজের বাইরে এলোমেলো ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। এ বিষয়ে হিমাগারের ভারপ্রাপ্ত ম্যানেজার হাবিবুর রহমান হাবিব জানান, এ কোল্ডস্টোরেজে আলু রাখার ব্যবস্থা আছে ৬০ হাজার বস্তা, ভেতরে আছে ৩৬ হাজার বস্তা। আলু পচার কারণ বিদ্যুতের সমস্যা ছিল। এ ছাড়া ১৫ দিন আগে কোল্ডস্টোরেজের ইঞ্জিন বিকল হয়েছিল। বর্তমানে কোল্ডস্টোরেজের ইঞ্জিনিয়ার, ফোরম্যান, অপারেটর, হেলপার সবাই পালিয়ে যাওয়ার কারণে হিমাগারটি অরক্ষিত হয়ে পড়ায় আলু পচে যায়।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সূত্রে জানা যায়, এ বছর আট হাজার ৮৫০ হেক্টর জমিতে আলু আবাদ হয়েছে। উৎপাদিত আলুর পরিমাণ দুই লাখ ৯১ হাজার ৫৭৫ মেট্রিক টন। উপজেলায় কোল্ডস্টোরেজের সংখ্যা মোট ২৭টি। ২৭টি কোল্ডস্টোরেজে আলু রাখার ধারণক্ষমতা দুই লাখ ১০ হাজার ২ মেট্রিক টন। প্রায় ৮০ হাজার মেট্রিক টন আলু হিমাগারে রাখার সুযোগ পায়নি কৃষক।

এ ব্যাপারে আলু চাষি সমিতির সাধারণ সম্পাদক জানান, আলু হচ্ছে এ অঞ্চলের সবচেয়ে লাভজনক ফসল। তাই প্রতি বছর অনেক কৃষক ধার-দেনা করে আলু চাষ করে থাকেন। কিন্ত- এ বছর কৃষকরা বাম্পার ফলন পেয়েও দাম কমার কারণে সর্বস্তান্ত হয়ে পড়েছেন।

[ad#co-1]

Leave a Reply