শাহ মোয়াজ্জেম ও রফিকুল মিয়াকে হয়রানি না করার নির্দেশ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জীবননাশের হুমকির অভিযোগে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন ও স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়াকে মামলা আমলে না নেয়া পর্যনত্ম গ্রেফতার বা হয়রানি না করার নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। অন্য আরেক আদেশে বলা হয়েছে, মামলা আমলে নেয়ার পর তাদের জামিনের আবেদন থাকলে তা বিবেচনারও নির্দেশ দিয়েছে আদালত। অন্যদিকে বিএনপি নেতা ও সাবেক সচিব শমসের মোবিন চৌধুরীর বিদেশে যেতে বাধা না দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে হাইকোট। একই সঙ্গে তাকে বিদেশ যেতে বাধা প্রদানকে কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না সে বিষয়ে সংশিস্নষ্টদের প্রতি চার সপ্তাহের রম্নল জারি করছে আদালত। সাবেক বিচারপতি জয়নুল আবেদীনের দুদকের নোটিসের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে দায়ের করা রিট খারিজ করেছে হাইকোর্ট। অন্যদিকে হযরত ইব্রাহিম (আ) ইসমাইলকে (আ) নয়, ইসহাককে (আ) কোরবানি করতে নিয়ে গিয়েছিলেন বলে দাবি করে এর সঠিক ব্যাখ্যা চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর জীবননাশের হুমকি ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জীবননাশের হুমকির অভিযোগে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন এবং স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিষ্টার রফিকুল ইসলাম মিয়াকে মামলা আমলে না নেয়া পর্যনত্ম গ্রেফতার বা হয়রানি না করার নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। একই সঙ্গে বলা হয়েছে, মামলা আমলে নেয়ার পর তাদের জামিনের আবেদন থাকলে বিবেচনা করতে নিম্নআদালতকে বলা হয়েছে। বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দসত্মগীর হোসেন এবং বিচারপতি একেএম জহিরম্নল হকের সমন্বয়ে গঠিত দ্বৈত বেঞ্চ রবিবার এই আদেশ দিয়েছে।

উলেস্নখ্য, ২৫ জুলাই পল্টন ময়দানে জনসভায় বক্তব্য দেয়ার সময় শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন এবং ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া শেখ হাসিনাকে জীবননাশের হুমকি দেন। এর পর মানিকগঞ্জ জেলার সিঙ্গাইরে ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে বাদী হয়ে মোঃ মাজেদ খান ঐ দুই নেতার বিরম্নদ্ধে মামলা করেন। রবিবার ঐ দুই নেতা জামিনের জন্য আসেন। ্আদালত উভয় পৰের বক্তব্য শুনে উপরোক্ত আদেশ প্রদান করে। শুনানিতে বিএনপি দুই নেতার পৰে ছিলেন এ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন। সরকার পৰে ছিলেন ডিএজি মোঃ সেলিম।

শমসের মোবিন চৌ ॥ বিএনপি নেতা এবং সাবেক সচিব শমসের মোবিন চৌধুরীর বিদেশ যেতে বাধা প্রদানকে কেন অবৈধ হবে না এ বিষয়ে জানতে সংশিস্নষ্টদের প্রতি চার সপ্তাহের রম্নল জারি করেছে হাইকোর্ট। বিচারপতি মোঃ আব্দুল ওয়াহাব মিয়া এবং বিচারপতি কাজী রেজা-উল হকের সমন্বয়ে গঠিত দ্বৈত বেঞ্চ রবিবার এই আদেশ দিয়েছে।

নিউইয়র্ক ইন্টারন্যাশনাল সিভিল সার্ভিস কমিশনের বার্ষিক সভায় সদস্য হিসেবে ২৮ জুলাই নিউইয়র্ক যাবার সময় বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশন কর্তর্ৃপৰ বাধা প্রদান করে। তাকে ফিরিয়ে দেয়া হয়। বাধা দানের কারণে তিনি হাইকোটে রিট দায়ের করেন। শুনানি শেষে আদালত উক্ত রায় প্রদান করে। শমসের মোবিনের পৰে ছিলেন খন্দকার মাহবুব হোসেন, ব্যারিস্টার বদরম্নদ্দোজা বাদল। সরকারের পৰে ছিলেন ডিএজিন রাজিক-আল-জলিল।

[ad#co-1]

Leave a Reply