সিনথিয়ার হত্যাকারীদের শাস্তি নিশ্চিতে শিক্ষামন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি

সেতু ইসলাম, মুন্সীগঞ্জ
আমরা সমাজে মানুষ তৈরি করতে চাই জাহাঙ্গীরের মতো বখাটে তৈরি করতে চাই না। আমাদের সচেতন হতে হবে এবং আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি বদলাতে হবে। মেয়েদের শুধু ভোগের পণ্য বানালে চলবে না তাদের সত্যিকারের মানুষের মতো মানুষ হিসেবে চলতে দিতে হবে। সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের ক্লাসের ফাঁকে ফাঁকে ইভটিজিং বিষয়ে শিক্ষার্থীদের সচেতনতামূলক প্রশিক্ষণ দিতে হবে। গতকাল শনিবার দুপুরে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরের বাড়ৈখালী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ওই বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণীর মেধাবী শিক্ষার্থী হাসনা রহমান সিনথিয়ার শোকসভায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এ সব কথা বলেন। তিনি মেয়েদের উদ্দেশ্যে বলেন সাহসের সঙ্গে মেয়েদের পথ চলতে হবে এগিয়ে যেতে হবে নির্বিগ্নে, সকল প্রতিকূলতাকে রুখে গিয়ে পৌঁছাতে হবে সাফল্যের চূড়ায়। এ সময় মন্ত্রী আরো বলেন, আগামী ২০১১ সালের মধ্যে পাঠ্যপুস্তকে ইভটিজিং প্রতিকার সোহেলী পারভীন রানু, প্রধান শিক্ষক ইউসুফ আলী প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

শোকসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় শিক্ষামন্ত্রী বলেন, দেশের বিভিন্ন স্থানে বখাটেদের নিপীড়ন-অত্যাচারে মেয়েরা স্কুলে যেতে পারে না, পরীক্ষা দিতে পারে না, ঘরে বন্দি থাকতে বাধ্য হয়, অনেককে আবার অভিভাবকরা অল্প বয়সে বিয়ে দিয়ে দেয়। এসব মেনে নেয়া যায় না। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে গৃহীত নানা কর্মসূচির উল্লেখ করে তিনি বলেন, আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীর তৎপরতার পাশাপাশি জনসচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে। শিক্ষক-শিক্ষার্থী-অভিভাবকসহ সমাজের সর্বস্তরের মানুষের সম্মিলিত প্রতিরোধ আন্দোলনের মাধ্যমে এ অপতৎপরতা রুখতে হবে। তিনি সবাইকে নিয়ে স্কুলে-কলেজে বখাটে প্রতিরোধ কমিটি গঠনের পরামর্শ দেন। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সিনথিয়া হত্যার প্রতিটি আলামত সঠিকভাবে উপস্থাপন করার নির্দেশ দিয়ে মন্ত্রী বলেন, সন্ত্রাসীরা যেন কোনোভাবেই পার না পেয়ে যায়। শোক অনুষ্ঠান শেষে মন্ত্রী সিনথিয়ার বাড়িতে গেলে সিনথিয়ার বাবা-মা ও পরিবারের অন্য সদস্যদের আহাজারি ও কান্নায় সেখানে এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের সৃষ্টি হয়। মন্ত্রী তাদেরকে সান্ত¡না দেন ও গভীর সমবেদনা জানানোর সঙ্গে আবারো দোষীদের বিচার নিশ্চিত করার আশ্বাস দেন। এ সময় মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, স্থানীয় রাজনৈতিক নেতা ও জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

ডেসটিনি

—————————————————————-

সিনথিয়ার আত্মহননের জন্য দায়ী কেউ রেহাই পাবে না

মুন্সীগঞ্জে শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, সিনথিয়ার আত্মহননের জন্য দায়ী জাহাঙ্গীরসহ যারা প্ররোচনা দিয়েছে তাদের সর্বোচ্চ কঠোর শাসত্দি দেয়া হবে। তার সঙ্গীসাথী কেউই রেহাই পাবে না। প্রয়োজনে এ জন্য আইন প্রণয়ন করা হবে। মন্ত্রী আবেগজড়িত কণ্ঠে বলেন, এ মৃত্যু মেনে নেয়া যায় না। আমি সবার সঙ্গে এ বেদনা ভাগ করে নেয়ার জন্য এখানে এসেছি। এটা শুধু শ্রীনগর বা মুন্সীগঞ্জের বিষয় নয়, সমগ্র দেশের মানুষকে নাড়া দিয়েছে। বিষয়টি উদ্বেগজনক। তিনি শিশুদের নিরাপদে বিদ্যালয়ে গমন এবং আনন্দঘন শিক্ষা পরিবেশ সৃষ্টিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় বিভিন্ন পদক্ষেপ উলেস্নখ করে বলেন, শিক্ষার জায়গা হচ্ছে পরিবার, বিদ্যালয় ও সমাজ। এ ৩টির সম্বনয়ে নৈতিক চরিত্র গঠনে কাজ করতে হবে। নৈতিক চরিত্রের বিষয় পাঠ্যপুসত্দকে সম্পৃক্ত এবং নৈতিক চরিত্র গঠনে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। ছেলেদের মূল্যবোধ পরিবর্তন করতে হবে। মেয়েদের সাহস যোগাতে হবে। নতুন শিক্ষানীতিতে এগুলো গুরম্নত্ব পাবে।

তিনি শনিবার দুপুরে আকস্মিক এক সফরে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার বাড়ৈখালী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আলোচনাসভায় এ কথা বলেন। জেলা প্রশাসক আজিজুল আলমের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক নোমান উর রশিদ, পুলিশ সুপার মোঃ শফিকুল ইসলাম, সিনথিয়ার চাচা রোসত্দম আলী, উপজেলার দুই ভাইস চেয়ারম্যান সেলিম আহম্মেদ ভূইয়া ও রানু আক্তার, বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক ইউসুফ আলী ও সিনথিয়ার কাজিন শ্রীনগর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা বাসনা বেগম। মন্ত্রী সিনথিয়ার নামে এ বিদ্যালয়ে একটি ভবন নির্মাণের ঘোষণা দেন।

জনকন্ঠ

———————————————————–

ইভটিজিং বন্ধে নতুন আইন: শিক্ষামন্ত্রী

ইভটিজিং বন্ধে কঠোর শাস্তি দিতে প্রয়োজনে নতুন আইন করা হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

শনিবার দুপুরে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার বাড়ৈখালী উচ্চবিদ্যালয় মাঠে এক আলোচনা সভায় মন্ত্রী একথা বলেন।

ইভটিজিংয়ের শিকার হয়ে গত বুধবার সন্ধ্যায় এ বিদ্যালয়েরই দশম শ্রেণীর ছাত্রী হাসনা রহমান সিনথিয়া আত্মহত্যা করেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “সিনথিয়ার আত্মহত্যার জন্য দায়ী জাহাঙ্গীরসহ যারা প্ররোচণা দিয়েছে তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি দেওয়া হবে। তার সঙ্গী-সাথী কেউই রেহাই পাবে না। প্রয়োজনে এজন্য নতুন আইন প্রনয়ণ করা হবে।”

এই মৃত্যু কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, “সবার সঙ্গে এই বেদনা ভাগ করে নেওয়ার জন্য আমি এখানে এসেছি। এটা শুধু শ্রীনগর বা মুন্সীগঞ্জের বিষয় নয়, সারা দেশের মানুষকে এ ঘটনা নাড়া দিয়েছে।”

নিরাপদে বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়া এবং আনন্দঘন শিক্ষার পরিবেশ সৃষ্টিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয় কাজ করে যাচ্ছে দাবি করে মন্ত্রী বলেন, “শিক্ষার জায়গা হচ্ছে পরিবার, বিদ্যালয় ও সমাজ। এ তিনটির সমন্বয়ে নৈতিক চরিত্র গঠনে কাজ করতে হবে। নৈতিক চরিত্রের বিষয়টি পাঠ্যপুস্তকে অর্ন্তভূক্ত এবং চরিত্র গঠনে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। নতুন শিক্ষানীতিতে এগুলো গুরুত্ব পাবে।”

সিনথিয়ার স্মৃতিকে স্মরণীয় করে রাখতে বিদ্যালয়ে নতুন একটি ভবন নির্মাণের ঘোষণা দেন মন্ত্রী।

পরে তিনি শোকাহত পরিববারের সদস্যদের সান্তনা দিতে সিনথিয়ার বাসায় যান। এসময় সিনথিয়ার বাবা-মাসহ স্বজনরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন।

জেলা প্রশাসক আজিজুল আলমের সভাপতিত্বে আলোচনায় অন্যদের মধ্যে শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক নোমান উর রশিদ, জেলার পুলিশ সুপারিনটেনডেন্ট শফিকুল ইসলাম এবং সিনথিয়ার চাচা রোস্তম আলী অংশ নেন।

বিডি নিউজ 24

———————————————————-

সিনথিয়া হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করা হবে: শিক্ষামন্ত্রী

মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগরে বখাটে-সন্ত্রাসীর অত্যাচারে নিহত দশম শ্রেণীর ছাত্রী সিনথিয়া হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করা হবে। মদদদাতাদের কাউকে রেহাই দেয়া হবে না। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ আজ শনিবার সিনথিয়া গ্রামে বাড়ৈখালি উচ্চ বিদ্যালয়ে তাঁর উপস্থিতিতে আকষ্মিকভাবে আয়োজিত এক শোক সভায় এ আশ্বাস প্রদান করেন। জেলা প্রশাসক আজিজুল আলমের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রফেসর নোমান উর রশীদ, পুলিশ সুপার

শফিকুল ইসলাম, সিনথিয়ার বড় চাচা রুস্তম আলী, শ্রীনগর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান সেলিম আহমেদ ভূঁইয়া, সোহেলী পারভীন রানু, প্রধান শিক্ষক ইউসুফ আলী প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

শিক্ষামন্ত্রী শোক সভায় বলেন দেশের বিভিন্ন স্থানে বখাটেদের নিপীড়ন-অত্যাচারে মেয়েরা স্কুলে যেতে পারে না, পরীক্ষা দিতে পারে না, ঘরে বন্দি থাকতে বাধ্য হয়, অনেককে আবার অভিভাবকরা অল্প বয়সে বিয়ে দিয়ে দেয়। এসব মেনে নেয়া যায় না। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে গৃহীত নানা কর্মসূচির উল্লেখ করে তিনি বলেন আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীর তৎপরতার পাশাপাশি জনসচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে। শিক্ষক-শিক্ষার্থী-অভিভাবকসহ সমাজের সর্বস্তরের মানুষের সম্মিলিত প্রতিরোধ আন্দোলনের মাধ্যমে এ অপতৎপরতা রুখতে হবে। তিনি সবাইকে নিয়ে স্কুলে-কলেজে বখাটে প্রতিরোধ কমিটি গঠনের পরামর্শ দেন। তিনি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি সিনথিয়া হত্যার প্রতিটি আলামত সঠিকভাবে উপস্থাপন করার নির্দেশ দিয়ে বলেন সন্ত্রাসীরা যেন কোনভাবেই পার না পেয়ে যায়। মন্ত্রী ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেন সৃষ্টিকর্তার দেয়া এ জীবন তো একটাই। অন্যায়ের সাথে মাথা নত করে নয় সাহসের সাথে বাঁচতে হবে। যে কোন প্রতিকূলতা বাবা-মাকে নির্ভয়ে জানিয়ে রাখতে হবে। তিনি শিক্ষক ও অভিভাবকদের ছাত্রছাত্রী ও সন্তানের সমস্যা বন্ধুর মতো শোনার পরামর্শ দেন।

মন্ত্রী সিনথিয়ার বাড়িতে গেলে কয়েক শ’ লোকের উপস্থিতিতে সিনথিয়ার বাবা-মা ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যের আহাজারি ও কান্নায় আবেগঘন এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের সৃষ্টি হয়। মন্ত্রী তাদের সান্ত্বনা দেন ও গভীর সমবেদনা জানান। তিনি আবারো সিনথিয়ার অত্যাচারীদের বিচার নিশ্চিত করার আশ্বাস দেন। এ সময় মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

শীর্ষ নিউজ
————————————————————

বখাটেদের শায়েস্তা করতে প্রয়োজনে নতুন আইন
সিনথিয়ার বিদ্যালয়ে শিক্ষামন্ত্রী

ইভ টিজিংয়ের শিকার হয়ে আত্দহত্যাকারী মুন্সীগঞ্জের বাড়েখালী উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী সিনথির মা-বাবাকে সান্ত্বনা দেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। ছবি : ফোকাস বাংলা

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, সিনথিয়ার হত্যাকারীর বিচার এ মাটিতেই হবে। যে জাহাঙ্গীরের প্ররোচনায় সিনথিয়াকে আত্দাহুতি দিতে হয়েছে এবং তাকে (জাহাঙ্গীরকে) যারা সহযোগিতা করেছে, তাদেরও বিচার হবে। কেউই রক্ষা পাবে না। আইনের সর্বোচ্চ সাজা দেওয়া হবে। তাদের বিচারের ক্ষেত্রে আইনের সীমাব”তা থাকলে সংসদে নতুন আইন পাস করে এ রকম উত্ত্যক্তকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে। ইভ টিজিংয়ের শিকার হয়ে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার বাড়ৈখালী উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রী হাসনা রহমান সিনথিয়া আত্দহত্যা করায় গতকাল শনিবার এক আকস্মিক সফরে গিয়ে ওই বিদ্যালয়ে এক আলোচনা সভায় মন্ত্রী এ ঘোষণা দেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সড়ুলে পড়ালেখা হবে, এটাই শেষ কথা নয়। কোনো ধরনের সন্ত্রাসীর কাছে মাথানত করা চলবে না। শুধু পড়ালেখা করলেই হবে না, বিদ্যালয়ে যথাযথ পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। শিক্ষকদের ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গে বনুসুলভ আচরণ করতে হবে। তাদের সমস্যা বুঝতে হবে। তিনি আরো বলেন, বখাটে সন্ত্রাসীরা আমাদের মেয়েদের উত্ত্যক্ত করে। মান সন্মানের ভয়ে মা-বাবা মেয়েদের বয়স হওয়ার আগেই বিয়ে দিয়ে দেন। এতে মেয়েরা যথাযথ শিক্ষা গ্রহণ থেকে বঞ্চিত হয়। আইনের মাধ্যমে এসব বখাটে, সন্ত্রাসী ও উত্ত্যক্তকারীর বিচার করতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, আগে ইভ টিজিংয়ের মতো বিষয়গুলো গোপন থাকত, কিন্তু বর্তমানে মিডিয়ার কল্যাণে তা আর গোপন থাকছে না। তাই ইভ টিজিং সম্পর্কে সারা দেশের মানুষ জানতে পারছে। অভিভাবকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, কোনো ক্ষেত্রে মেয়ে ইভ টিজিংয়ের শিকার হলে মা-বাবা উল্টো মেয়েকে শাসান এই বলে, ‘নিশ্চয়ই তুমি এমন কোনো আচরণ করেছ, যার ফলে তোমার সঙ্গে ও-রকম করেছে।’ এ রকম কথায় মেয়েরা আশ্রয়হীন হয়ে পড়ে। তাদের আশ্রয়হীন করবেন না; বরং তাদের সঙ্গে আন্তরিকভাবে মিশুন। তাদের সমস্যাগুলো বুঝতে চেষ্টা করুন। এর প্রতিকার করুন। তাহলে জাহাঙ্গীরের মতো বখাটেরা আর কোনো সিনথিয়াকে আত্দাহুতিতে বাধ্য করতে পারবে না।

নুুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, ‘যারা ইভ টিজিং করে, তারাও আমাদের সন্তান। আমাদের ছেলেমেয়েদের ঠিক রাখতে হবে। বাড়িতে মা-বাবাকে সন্তানের চরিত্র সম্পর্কে খোঁজ রাখতে হবে। সমাজ মানুষ তৈরি করে, জাহাঙ্গীরের মতো পশু তৈরি করতে চায় না। প্রকৃত মানুষ হওয়ার জন্য নৈতিক মূল্যবোধ উন্নয়নের চেষ্টা করতে হবে। শুধু জ্ঞান অর্জন ও পুস্তক পড়লেই চলবে না; আমরা চাই পরিপূর্ণ মানুষ।’

ছাত্রছাত্রীদের দাবির মুখে ইভ টিজিংয়ে আত্দহননকারী সিনথিয়ার নামে বিদ্যালয়ে একটি ভবন নির্মাণের ঘোষণা দেন মন্ত্রী। তা ছাড়া এলাকাবাসী জানায়, বাড়ৈখালী উপজেলা প্রশাসন ও থানা থেকে অনেক দূরে হওয়ায় কোনো কিছু ঘটলেও সহসা পুলিশ পাওয়া যায় না। তাই এখানে একটি পুলিশ ফাঁড়ির দাবি জানায় এলাকাবাসী। এ ব্যাপারে মন্ত্রী জানান, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে দেখবেন।

মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসক আজিজুল আলমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক নোমানুর রশিদ, মুন্সীগঞ্জ পুলিশ সুপার শফিকুল ইসলাম, সিনথিয়ার বড় চাচা ও মামলার বাদী রুস্তম আলী, শ্রীনগর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিম আহমেদ ভঁ”ইয়া, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সোহেরা পারভীন রানু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন, বাড়ৈখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. ইকবাল হোসেন, বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্রী ও উপজেলা পশুসম্পদ কর্মকর্তা বাসনা আক্তার পাপিয়া, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইউসুফ আলী প্রমুখ।

কালের কন্ঠ
———————————————————–

ইভটিজিং বন্ধে নতুন আইন হবে : শিক্ষামন্ত্রী


শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, বখাটেদের শাস্তি ও ইভটিজিং বন্ধে প্রয়োজনে আইন সংশোধন করা হবে। নতুন করে আইন তৈরি করা হবে। গতকাল শ্রীনগর উপজেলার বাড়ৈখালী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। এদিকে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার বাড়ৈখালী গ্রামে বখাটের উৎপাতে আত্মহননকারী স্কুলছাত্রী হাসনা রহমান সিনথিয়ার বাড়িতে গিয়ে আবেগাপল্গুত হয়ে পড়েন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। এ সময় তিনি শোকাভিভূত সিনথিয়ার পরিবারের সদস্যদের সান্ত্বনা দেওয়ার ভাষা হারিয়ে ফেলেন। তিনি বলেন, আপনাদের কী বলে যে সান্ত্বনা দেব এ মুহূর্তে। আমার মুখে কোনো ভাষা নেই। এ সময় শিক্ষামন্ত্রীকে কাছে পেয়ে কেঁদে ফেলেন সিনথিয়ার বাবা শেখ হাফিজুর রহমান। মা শিউলি বেগমও কাঁদতে কাঁদতে একপর্যায়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। ছোট ভাই তাফিজ (৫) ও সিফার (১০) বিরামহীন কান্নায় এক মর্মস্পর্শী দৃশ্যের অবতারণা হয় সিনথিয়ার বাড়ি। ওই বাড়ির আঙ্গিনায় নামে শোকবিদ্ধ সহপাঠীদের ঢল। সহপাঠীরাও চোখের পানি থামিয়ে রাখতে পারেননি। এ সময় শিক্ষামন্ত্রী সিনথিয়ার বাবাকে বখাটের উৎপাতে সিনথিয়ার মৃত্যুর জন্য দায়ীদের উপযুক্ত শাস্তির আশ্বাস দেন।

পরে শিক্ষামন্ত্রী বাড়ৈখালী উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে সিনথিয়ার শোকসভায় যোগ দেন। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইউসুফ আলীর সভাপতিত্বে সিনথিয়ার শোকসভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন মাধ্যমিক শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিচালক নোমানুর রশিদ, মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোঃ আজিজুল আলম, জেলা পুলিশ সুপার মোঃ শফিকুল ইসলাম, শ্রীনগর উপজেলার মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান সহেলা পারভীন রানু, সিনথিয়া আত্মহনন মামলার বাদী ও চাচা রুস্তম শেখ, বাড়ৈখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাস্টার ইকবাল হোসেন প্রমুখ।

সমকাল

[ad#co-1]

Leave a Reply