পদ্মার পানি বৃদ্ধি, হাজরা চরজানাজাত ক্রস চ্যানেলের ড্রেজিং বন্ধ॥যানজট দুর্ভোগ

পদ্মার পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় গত ৩ দিন ধরে মাওয়া- কাওরাকান্দি রুটের হাজরা-চরজানাজাত ক্রস চ্যানেলের ড্রেজিং কাজ সম্পূর্ন বন্ধ রাখা হয়েছে। চ্যানেলটি চালু করার জন্য প্রায় ১ মাস ধরে বিআইডব্লিউটিএ’র অধীনে ড্রেজিংয়ের কাজ চলছিল। কিন্তু গত কয়েকদিনের পদ্মার স্রোতে ড্রেজিংকৃত স্থান গুলো আবার ভরে গেছে। এতে ঈদের আগে এই চ্যানেল সচল হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে। একদিকে অতিরিক্ত স্রোত থাকার কারণে ক্রস চ্যানেলটিতে ড্রেজিং মেশিন দিয়ে পলি অপসারনের সম্পূর্ন বন্ধ হয়ে যায় । অপর দিকে অতিরিক্ত স্রোতে চ্যানেলের ড্রেজিংকৃত স্থান আবার ভরে যায়। চ্যানেলটি বন্ধ থাকার ফলে উভয় পাড়ে অসংখ্য যানবাহন আটকা পড়ে। তাই ১৪ কিলোমিটারের স্থলে বর্তমানে ২০ কিলোমিটার পথ ঘুরে কাওনিয়া চ্যানেল হয়ে ফেরি চলাচল করছে। এতে দেড় ঘন্টা সময় বেশী ব্যয় হচ্ছে। তাই উভয়া পারে যানজট লেগেই আছে। ফেরি পারাপরে দেড় ঘন্টা সময় বেশী লাগায় দক্ষিণ ও দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের হাজার হাজার যাত্রীর অবর্ননীয় দুর্ভোগ পোয়াতে হচ্ছে। এছাড়া অতিরিক্ত স্রোতের ফলে এই চ্যানেল ভরে গিয়ে আবার অসংখ্য ডুবোচর সৃষ্টি চ্যানেল পুরোপুরি বন্ধ রাখা হয়েছে। ড্রেজিংয়ের অর্ধকোটি টাকারও বেশী জলে গেছে।

বিআইডব্লিউটিসি’র মাওয়া ঘাটের ম্যানেজার সিরাজুল ইসলাম জানান, পদ্মার পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকার কারনে চরজানাজাত-হাজরা ক্রস চ্যানেলের ড্রেজিং কাজ সম্পূর্ন বন্ধ রাখা হয়েছে। অতিরিক্ত স্রোতের চ্যানেলটি আবার ভরে যাওয়ায় বর্তমান ফেরিসহ সকর নৌযান চলাচল এই চ্যানেল দিয়ে বন্ধ রাখা হয়েছে। বর্তমান ২টি রো রো ফেরি ও ৫টি ডাম্প ফেরি, ২কেটাইপ, ১টা মেডিয়াম ফেরি লোড অবস্থায় দীর্ঘ পথ ঘুরে নদী পারাপার করতে বিঘœ ঘটছে। আগামী ঈদের আগে চ্যানেলটির ড্রেজিং কাজ সম্পূর্ন করে চালু করতে না পারলে দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার ঘর মুখো মানুষের অসহনীয় দুর্ভোগে পড়তে হবে।

মোহাম্মদ সেলিম, মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি। ০১৯১১১৪২৬৭০
২৬ আগস্ট ২০১০

[ad#co-1]

Leave a Reply