ফতুল্লার বক্তাবলিতে সড়ক দুর্ঘটনায় হত ১॥ আহত ৩০

রবিবার বিকালে সড়ক দুর্ঘটনায় রেনুজা বেগম (৫০) নামের বাসযাত্রী নিহত ও অপর ৩০ জন আহত হয়েছে। রবিবার বিকালে ফতুল্লা উপজেলার বক্তাবলির লালমিয়া চরের কাছে যাত্রীবাহীবাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পানিতে পড়ে যায়। বাসটি এখন অর্ধ নিমজ্জিত অবস্থায় রয়েছে। স্থানীয়ভাবে এটি উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। টঙ্গীবাড়ি থানার ওসি আব্দুল্লাহ জানান, বেতকা থেকে বিবাহোত্তর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে প্রায় ৫০ যাত্রী ফতুল্লা উপজেলার মীরগঞ্জ যাচ্ছিল। কনের বাড়ির প্রায় দেড় কিলোমিটার দূরে বাসটি খাদে পড়ে যায়। আহতদের ঢাকা, মুন্সিগঞ্জের বিভিন্ন হাসপাতাল ও বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে রয়েছে বরের বাবা ইউসুফ শিকদারসহ (৫৫), রুবিয়া বেগম (৩৫), মারুফ (১৬), জসিম শিকদার (৪১), হাজী রশিদ শিকদার (৯০), রজিয়া বেগম (৩৯)।

বেতকার জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ১০ জন। এই হাসতালের মালিক ও ইউপি চেয়ারম্যান জলিল শিকদার জানান, আহত প্রায় সকলের অবস্থাই গুরুতর। আহত রুমন শিকদার শিকদার জানান, হঠাৎ বাসটি ৩টি পলট খেয়ে পানিতে ডুবে যায়।

এদিকে আনন্দ উৎসব বিষাদে পরিনত হয়েছে। নিহত রেনজা বেতকার আব্দুল রহমান শিকদারের স্ত্রী, বরের চাচী।

রিগ্যান শিকদার ও ফাতেমা রহমান শিখার বিয়ের অনুষ্ঠান শনিবার সম্পন্ন হয়। রবিবার ছিল কনের বাড়িতে বিবাহোত্তর অনুষ্ঠান। বর কনেকে আনতে বরের বাড়ির ৫০ সদস্যের একটি দল দুপুরে রওনা হয়। সন্ধ্যা পৌনে ৬ টায় ফতুল্লা থানার ডিউটি অফিসার আবু হানিফ জানান, এখনও বাসটি উদ্ধার করা যায়নি। তবে স্থানীয়ভাবে উদ্ধার তৎপরতা চলছে।

[ad#co-1]

Leave a Reply