শুভ জন্মদিন চাষী নজরুল ইসলাম

চাষী নজরুল ইসলাম ৭০-এ পা দিলেন
একুশে পদক ও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রাপ্ত চলচ্চিত্রকার চাষী নজরুল ইসলাম আজ ৭০ বছরে পা দিলেন। আজ তার ৭০তম জন্মদিন। ৬৯টি বসন্ত পার করেও চিরসবুজ এই চাষী নজরুল ইসলাম, সবার প্রিয় চাষী ভাই। ১৯৪১ সালের ২৩শে অক্টোবর মুন্সীগঞ্জ বিক্রমপুরের শ্রীনগর জেলার সম্পূরক গ্রামে জন্ম তার। বাবার নাম মোসলেউদ্দিন আহমেদ, মায়ের নাম শায়েস্তা বেগম। দু’জনেই বেঁচে নেই। চার ভাই তিন বোনের মধ্যে সবার বড় চাষী নজরুল ইসলাম। তার পৈতৃক পদবী ‘চাষী’ না থাকলেও এই পদবীটা দিয়েছেন বাংলাদেশের দুই বিখ্যাত ব্যক্তি শেরে বাংলা একে ফজলুল হক ও জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম।

বাবা মোসলেউদ্দিন শিশু পুত্রকে নিয়ে গিয়েছিলেন দুই জীবন্ত কিংবদন্তির কাছে। শেরে বাংলার প্রস্তাবে কবি কাজী নজরুল ইসলাম নাম রেখে দেন চাষী নজরুল ইসলাম। সেই চাষীই আজ আমাদের চলচ্চিত্রের সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিত্ব অসংখ্য সাহিত্যনির্ভর ছবি এবং মুক্তিযুদ্ধের প্রথম ছবির সফল পরিচালক। তার পরিচালিত এই সব ছবির মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে-‘ওরা ১১ জন’, সংগ্রাম’, ‘বাজীমাৎ’, ‘দেবদাস’, ‘শুভদা’, ‘বিরহ ব্যথা’, রঙিন বেহুলা লক্ষ্মীন্দর’, ‘ভালো মানুষ’, ‘লেডী স্মাগলার’, ‘মিয়া ভাই’, ‘বাসনা’, ‘পদ্মা মেঘনা যমুনা’, দাঙ্গা ফ্যাসাদ’, আজকের প্রতিবাদ’, ‘মহাযুদ্ধ’, ‘শিল্পী’, ‘হাঙ্গর নদী গ্রেনেড’, ‘শুভ, ‘শাস্তি’, হাছন রাজা’, ‘মেঘের পরে মেঘ’, ‘ধ্রুবতারা’ ইত্যাদি। তার পরিচালিত ‘দুই পুরুষ’ এখন মুক্তির মিছিলে। আর দ্বিতীয় বারের মতো ‘দেবদাস’ নির্মাণ করছেন চাষী নজরুল ইসলাম। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সাবেক সভাপতি ও চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের সাবেক সদস্য চাষী নজরুল ইসলাম ব্যক্তি জীবনে স্ত্রী জ্যোৎস্না কাজী, দুই কন্যা, মান্নি ও আন্নি এবং ৬ নাতি ওয়াসি, ওয়ালি, স্বাক্ষর, অক্ষর, প্রখর ও মুখরকে নিয়ে বেশ সুখে দিন কাটাচ্ছেন। চাষী নজরুল ইসলাম ১৯৮৬ সালে ‘শুভদা’ এবং ১৯৯৭ সালে ‘হাঙ্গর নদী গ্রেনেড’ ছবির জন্য শ্রেষ্ঠ পরিচালক হিসাবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন। তিনি একুশে পদক এবং ফজলুল হক স্মৃতি পুরস্কারসহ অসংখ্য পুরস্কার লাভ করেন। ৭০তম জন্মদিনে চাষী নজরুল ইসলামকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

[ad#co-1]

Leave a Reply