৩ রানওয়ে বিশিষ্ট বঙ্গবন্ধু বিমানবন্দর নির্মাণের পরিকল্পনা: বিমান সচিব

দরপত্র আহ্বান ৩০ ডিসেম্বর
বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর নির্মাণ করার জন্য প্রাথমিকভাবে টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ এলাকায় ৩টি স্থান নির্বাচন করা হয়েছে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী আগামী ১শ বছরের কথা চিন্তা করে আমাদের কাজ করার কথা বলেছেন। এজন্য ৩ রানওয়ে বিশিষ্ট বিমানবন্দর করার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। গতকাল সকালে বলাকা ভবনে হজ-উত্তর সংবাদ সম্মেলনে বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব শফিক আলম মেহেদী সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। তিনি আরো জানান, বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর তৈরির জন্য আগামী ৩০ ডিসেম্বর দরপত্র আহ্বান করা হবে। এ লক্ষ্যে প্রাথমিক সমীক্ষার কাজ শুরু হয়েছে। আগামী ৩০ নভেম্বরের মধ্যে সমীক্ষার রিপোর্ট প্রকাশ করা হবে।

বিমান সচিব বলেন, ২ রানওয়ে বিশিষ্ট বিমানবন্দরের জন্য ৬ হাজার একর জমি অধিগ্রহণের পরিকল্পনা থাকলেও এখন ১০ থেকে ১২ হাজার একর জমি অধিগ্রহণ করার চিন্তা করা হচ্ছে। বাড়তি জমির জন্য পদ্মা সেতুর দুপাশে জমি দেখা হচ্ছে। পদ্মার এ পাড়ে ঢাকার দোহার, নবাবগঞ্জ ও মুন্সীগঞ্জ এলাকার লৌহজং, সিরাজদিখান, শ্রীনগর এলাকা থেকে একটি এবং ফরিদপুর, মাদারিপুর ও শরিয়তপুর থেকে আরেকটি স্থান প্রাথমিকভাবে নির্বাচন করা হবে। তিনি আরো বলেন, যেখানেই বিমানবন্দর স্থাপন করা হোক তার পাশে পর্যাপ্ত জায়গা রেখে এলিভেটেড এক্সপ্রেস এবং মনোরেল স্থাপন করা হবে। এরইমধ্যে বেশ কটি আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান বিমানবন্দর নির্মাণে আগ্রহ প্রকাশ করেছে বলে জানান তিনি।

সচিব জানান, এ বছর ৯১ হাজার ৮২৩ হজযাত্রী নিরাপদে জেদ্দায় পৌঁছেছেন। গত ৯ অক্টোবর থেকে শুরু হয়ে গত শুক্রবারে হজ ফ্লাইট শেষ হয়েছে। ২১ নভেম্বর থেকে ২২ ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে ফিরতি ফ্লাইট। বিমানসহ এ বছর ৮টি এয়ারলাইন্স হজ ফ্লাইট পরিচালনা করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর তৈরি প্রকল্প সেলের প্রধান জয়নাল উদ্দিন তালুকদার, বিমানের চেয়ারম্যান এয়ারমার্শাল (অব.) জামাল উদ্দিন আহমেদ ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক এয়ার কমোডর (অব.) জাকীউল ইসলাম।

তাওহীদুল ইসলাম:

[ad#bottom]

Leave a Reply