১১ পৌরসভায় নির্বাচন হবে না

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সুপারিশ পর্যালোচনা করে ১১ পৌরসভাকে নির্বাচনের তালিকা থেকে বাদ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। একই সঙ্গে তিনটি পৌরসভার নির্বাচন বহাল রেখেছে। এছাড়া আইনগত নথিপত্র পর্যালোচনা করে চারটি নতুন পৌরসভাকে নির্বাচনের জন্য অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। এগুলো হলো- মুন্সীগঞ্জের মীরকদম, শেরপুরে শ্রীবরদী, মেহেরপুর ও ফরিদপুর পৌরসভা।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কমিশনের সভা শেষে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে এ তথ্য জানান নির্বাচন কমিশনার মুহাম্মদ ছহুল হোসাইন।

মুন্সীগঞ্জের মীরকদম, শেরপুরে শ্রীবরদী, মেহেরপুর ও ফরিদপুর পৌরসভা নতুন করে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে নির্বাচনোপযোগী তালিকায়।

এ নিয়ে দেশের ৩১০টি পৌরসভার মধ্যে ২৬২টি পৌরসভার নির্র্বাচন হবে।

তিনি জানান, সিটি কর্পোরেশন করার প্রক্রিয়াধীন থাকায় এবং সীমানা ও আইনগত জটিলতার কারণে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে ১১ পৌরসভাকে ঘোষিত তফসিল থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ১৫ পৌরসভাকে তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার অনুরোধ জানানো হয়। মঙ্গলবার মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব মো. হারুনুর রশিদ স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ অনুরোধ জানানো হয়।

ইসি সচিবালয়ের সিনিয়র সহকারি সচিব আবদুল বাতেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, বাদ দেওয়ার জন্য স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অনুরোধ সত্ত্বেও নড়াইলের লোহাগড়, কুষ্টিয়া ও মাগুড়া পৌরসভার নির্বাচন বহাল রাখা হয়েছে।

এছাড়া টঙ্গী পৌরসভাকে তালিকা থেকে মন্ত্রণালয় বাদ দিতে বললেও তার প্রয়োজন পড়েনি। কারণ, ঘোষিত তফসিলে টঙ্গী পৌরসভার নাম ছিল না।

বিভাগীওয়ারি তফসিল অনুযায়ী এসব পৌরসভায় নির্বাচন হবে বলে জানান এই আবদুল বাতেন।

গত বৃহস্পতিবার ২৬৯ পৌরসভার নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে ইসি। চার দিনে এ নির্বাচন হবে।

[ad#bottom]

Leave a Reply