‘দিনের বেলায় মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষে বক্তব্য দিলেও রাতেই বিভিন্ন যড়যন্ত্র করা হয়েছে’

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ক্যাপটেন এবি তাজুল ইসলাম(অব.) বলেছেন, বিগত বিভিন্ন সরকারের সময় জনপ্রিয়তা অর্জনের লক্ষ্যে দিনের বেলায় মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষে বক্তব্য দিলেও রাতেই বিভিন্ন যড়যন্ত্র করা হয়েছে। বিভিন্ন সেক্টরে কর্মরত মুক্তিযোদ্ধাদের নিমর্ম ভাবে নির্বিচারের হত্যা করা হয়েছে। তিনি বলেন,বর্তমান ১৬ কোটি মানুষের মধ্যে ১২ কোটি মানুষই মুক্তিযুদ্ধ দেখে নাই। তাই ১২ কোটি মানুষ ও নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জনাতে বর্তমান সরকার বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহন করেছে। সরকার মুক্তিযুদ্ধের প্রতিটি স্মৃতি চিহ্নকে স্মৃতি স্তম্ভ নির্মান করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। ইতিমধ্যেই বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে। শনিবার দুপুরে মুন্সিগঞ্জ শিল্পকলা একাডেমী প্রাঙ্গনে জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ আয়োজিত মুন্সিগঞ্জ মুক্ত দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি একথা বলেন।

সভায় মুখ্য আলোচক হিসেব দীর্ঘ স্মৃতিচারণ করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বঙ্গবন্ধুর সহোচর আলহাজ মোহাম্মদ মহিউদ্দিন। মুক্তিযোদ্ধা সংসদের জেলা কমান্ডার মো. আনিসউজ্জামান আনিস সভাপতিত্ব বিশেষ অতিথির বক্তব্য ভাষণ দেন জাতীয় সংসদের হুইপ অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি এমপি, এম ইদ্রিস আলী এমপি, আলহাজ্ব মমতাজ বেগম এমপি, কেন্দ্রীয় আওয়মী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক মৃনাল কান্তি দাস, জেলা প্রশাসক মো. আজিজুল আলম, পুলিশ সুপার মো. সফিকুল ইসলাম। হুইপ এমিলি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও দেশ প্রেম নিয়ে বর্তমান সরকারের দিন বদলের সনদ বাস্তবায়নে সকলকে এগিয়ে এসে একযোগে কাজ করতে হবে। পরে সন্ধ্যায় একই মঞ্চে শাহিন মো.আমানউল্লাহ সভাপতিত্বে দর্শক ফোরামে আয়োজিত মুক্তদিবসের অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির ভাষণ দেন অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন বঙ্গবন্ধুর সহোচর আলহাজ মোহাম্মদ মহিউদ্দিন। বিশেষ অতিথির ভাষণ দেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব মমতাজ বেগম এমপি।

[ad#bottom]

Leave a Reply