রাজাকারের ছেলে টঙ্গীবাড়ী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি

রাজাকারের ছেলে টঙ্গীবাড়ী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি। তিনি হচ্ছেন জগলূল হালদার ভুতু। তার বাবা রাজাকার মমতাজউদ্দিন মাস্টার। ১৯৭১ সালের মুক্তিযোদ্ধের সময় মুন্সিগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলার দীঘিরপাড় ছিলো রাজাকারদের শক্তিশালি ঘাঁটি। এখানে শান্তি কমিটির মেম্বার ছিলেন মরহুম হাফেজ খাঁ। রাজাকার হিসেবে এখানে কাজ করে জগলুল হালদার ভুতুর বাবা মরহুম মমতাজ মাস্টার, মরহুম ইদ্রিস হালদার, মরহুম আরব আলী হালদার, নূরু মোল্লা, মরহুম রোস্তম হালদার। যুদ্ধের সময় ইদ্রিস হালদারকে বেদেরগঞ্জের মুক্তিযোদ্ধা লুৎফর গ্রুপ ধরে নিয়ে যায়। কিন্তু তিনি কারো কোনো ক্ষতি না করায় তাকে সেই সময় হত্যা করা হয়নি। তখন রাজাকাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিলেন, ফজল হক, রাজ্জাক হাওলদার, রকমান হালদার ও নুরু খাঁ। রাজাকারদের পরোচনায় পাকবাহিনী মুক্তিযোদ্ধোদের ভূকৈশাল ক্যাম্পে আক্রমণ করেন।

রহস্যময় জগলূল হালদার ভুতু প্রথমে এরশাদের জাপা রাজনীতি করেন। পরে আওয়ামীলীগের রাজনীতি প্রবেশ করেন। আওয়ামীলীগ মুক্তিযোদ্ধের সংঘঠন। অথচ এটির নেতৃত্ব দিচ্ছেন রাজাকারের ছেলে। ছি। ছি। ছি।

[ad#bottom]

Leave a Reply