খালেদার জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা নথিভুক্ত হয়নি

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণায় আড়িয়ল বিলবাসীর উল্লাস, মিষ্টি বিতরণ
কাজী দীপু, মুন্সীগঞ্জ থেকে: আড়িয়ল বিলের সহিংস ঘটনায় গতকাল বুধবার পর্যন্ত পুলিশ অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন গ্রাম থেকে ২০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। তবে গ্রেপ্তারকৃতদের নাম ঠিকানা জানাতে পুলিশ অপারগতা প্রকাশ করে। অপরদিকে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে প্রধান আসামি করে আ’লীগ নেতার দায়ের করা অভিযোগ শ্রীনগর থানায় গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করা হয়নি। তবে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণায় আড়িয়ল বিলবাসীর মধ্যে উল্লাস ছড়িয়ে পড়েছে। বিভিন্ন গ্রামে মিষ্টি বিতরণেরও খবর পাওয়া গেছে।

বিকল্পধারা বাংলাদেশের মুখপাত্র ও সাবেক এমপি মাহি বি চৌধুরী গতকাল আড়িয়ল বিলের লস্করপুর, শ্রীধরপুরসহ বিভিন্ন গ্রাম পরিদর্শনকালে আড়িয়ল বিলে সহিংস ঘটনার জন্য স্থানীয় সরকারদলীয় এমপি সুকুমার রঞ্জনকে দোষারোপ করেছেন। তবে স্থানীয় এমপির ঘনিষ্ঠজনরা দাবি করেন, রাজনৈতিক ফায়দা নিতেই মাহি বি চৌধুরী এসব কথা বলছেন।

শ্রীনগর থানার ওসি সাখাওয়াত হোসেন জানান, গত দুই দিনের মতো গতকালও গ্রেপ্তার অভিযান অব্যাহত রয়েছে। খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়ের করা এজাহারের আইনগত বিষয়গুলো যাচাই-বাছাই শেষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে আড়িয়ল বিলে বিমানবন্দর নির্মাণে জনগণ ক্ষতিগ্রস্ত হলে প্রয়োজনে অন্য জায়গা ঠিক করা হবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এই বক্তব্য ছড়িয়ে পড়লে আড়িয়ল বিল এলাকায় আনন্দ উল্লাস ছড়িয়ে পড়েছে। মসজিদের মাইক দিয়েও প্রধানমন্ত্রীর এই বক্তব্য মানুষকে জানানো হচ্ছে। তবে পুলিশের গ্রেপ্তার অব্যাহত থাকায় বিলবাসী রাস্তায় নামতে পারছে না।

এ প্রসঙ্গে হাঁসাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা মোশারফ হোসেন জানান, আজকের এই দিনটিকে আড়িয়লবাসী মনে রাখবে। প্রতিবছর এই দিনে আড়িয়ল বিল মুক্ত দিবস পালন করারও উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। এ সময় তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জনগণের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানান। বিরোধীদলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে শ্রীনগর ইউনিয়নের মুন্সীরহাটি গ্রামে ও টিক্কা মার্কেটে বুধবার দুপুরে প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিএনপি নেতাকর্মী ও বিলবাসী। এছাড়া মুন্সীগঞ্জ শহরে সাবেক উপমন্ত্রী আব্দুল হাইয়ের নেতৃত্বে ও গজারিয়া উপজেলার রসুলপুর মেঘনা ব্রিজ এলাকায়ও বিএনপি নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ করেছে।

[ad#bottom]

Leave a Reply