মুন্সীগঞ্জ কি খালেদা জিয়ার হাতে তুলে দেবেন?

তোফায়েলকে এরশাদের টেলিফোন
পীর হাবিবুর রহমান: সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচএম এরশাদ আওয়ামী লীগ নেতা তোফায়েল আহমেদকে ফোন করে বললেন, কী ভাইসাব মুন্সীগঞ্জ কি খালেদা জিয়ার হাতে আজীবনের জন্য তুলে দিতে চাইছেন? উত্তরে স্বভাবসুলভ মিষ্টি হাসি ছড়িয়ে তোফায়েল আহমেদ বললেন, জানি না কি যে হলো! ২০০৮ সালে এত বড় ভিক্টরি আমরা পেলাম আর আজ এই অবস্থা দেখতে হচ্ছে। নির্বাচনে যে বিএনপিকে খুঁজে পাওয়া গেল না সেই বিএনপির দলীয় কার্যালয় আজ সরগরম হয়ে উঠছে। তবে নিরাশ হবেন না। প্রধানমন্ত্রী ছিলেন না। তিনি ঠিক কাজটিই করবেন। দেখবেন এখানে বিমানবন্দরই হচ্ছে না। এরশাদ বললেন, সামাল দিতে পারলে ভালোই। পরিস্থিতি যেদিকে যাচ্ছে তাতে তো শাহ মোয়াজ্জেম একাই মুন্সীগঞ্জ নিয়ে যাবে।

এদিকে সূত্র জানায়, মুন্সীগঞ্জের বিক্ষোভ সহিংসতার ঘটনায় বিরোধীদলের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে আসামি করে দলের যে স্থানীয় নেতা ও পিপি মামলা করেছেন তাকে নিয়ে দলের ও সরকারের সব স্তরেই অসন্তোষ দেখা গেছে। কার সঙ্গে পরামর্শ করে, কার নির্দেশে তিনি এমন মামলা করলেন তার সন্ধান হচ্ছে। দলের নেতা মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, খোঁজ নেয়া হচ্ছে কেন এই মামলা করতে গেলেন। এর সঙ্গে কেন্দ্রের বা সরকারের কোনো সম্পৃক্ততা নেই। আইন প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বললেন, তিনি পিপি হিসেবে নয়, আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতা হিসেবেই মামলা করেছেন। এদিকে অপর একটি সূত্র জানায়, মুন্সীগঞ্জের পুলিশ সুপার সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীকে বলা হয়েছে, তিনি আওয়ামীবিরোধী ঘরনার লোক। বিক্ষোভকারীরা সড়কে ওঠার আগেই তিনি নিয়ন্ত্রণ করত পারতেন। কিন্তু পরিকল্পিতভাবে লোকজনকে সহিংস হয়ে ওঠার সুযোগ দেয়া হয়েছে।

[ad#bottom]

Leave a Reply