আমার প্রিয় লেখক রবীন্দ্র নাথ ঠাকুর -সায়ান

আমার প্রিয় লেখকের তালিকাটা যিনি দখল করে আছেন তিনি হচ্ছেন কবি গুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। তার লেখার ভীষণ ভক্ত আমি। আমি ১৪ বছর বয়স থেকে রবীন্দ্র নাথের বই পড়তাম। আমার পড়া রবীন্দ্রনাথের প্রথম উপন্যাস হচ্ছে ‘সঞ্চয়িতা’। তিনি তার গল্প-উপন্যাসে মানুষের জীবনের প্রতিটি মুহূর্তকে সঠিক শব্দ চয়নের মাধ্যমে তুলে ধরেন। মানুষের না বলা কথাগুলো তারই লেখা বইতে খুঁজে পাওয়া যায়। আমার কাছে রবীন্দ্রনাথ একজন অসাধারণ ঔপন্যাসিক, লেখক, কবি। তার বেশিরভাগ উপন্যাসই আমি পড়েছি। ‘ঘরে বাইরে’ ‘বৌ ঠাকুরানির হাট’, ‘গোরা’, ‘গীতাঞ্জলি’, ‘শেষের কবিতা’ এ উপন্যাসগুলো আমি অনেকবার পড়েছি। তবে সবচেয়ে বেশি ভালো লেগেছে ‘ঘরে বাইরে’ উপন্যাসটি। পুরো উপন্যাসটির উপস্থাপন আমার কাছে অসাধারণ লেগেছে। যতোবার পড়েছি, ততোবারই নতুন মনে হয়েছে। অন্য সব লেখকের মতো তিনি তার লেখায় ভাষাকে গুরু গম্ভীর করেননি। সাধারণ মানুষের মুখের ভাষাই বইয়ে তুলে ধরেছেন। অসম্ভব সুন্দর করে মানুষের মনের কথাগুলো লেখনির মাধ্যমে প্রকাশ করেছেন। আমি যখন অবসরে থাকি তখন তার লেখা বই পড়ি। আর যখন পড়ি তখন একেবারে তার গল্পের চরিত্রের মধ্যে নিমগ্ন হয়ে যাই। এছাড়াও তার গান ও নাটক ভীষণ ভক্ত আমি। এতোসব গুণাবলীর কারণেই রবীন্দ্র নাথ আমার প্রিয় লেখক। প্রতিবছরই একুশে গ্রন্থমেলায় যাই। এরই মধ্যে দুবার গেছি। সুযোগ হলে আরো বেশকবার যাবো।

দিনের শেষে

[ad#bottom]

Leave a Reply