ডাক্তাদের ক্ষমা প্রার্থনা

মুন্সীগঞ্জ হাসপাতালে ডাক্তার দেরিতে আসায় কক্ষে তালা লাগিয়ে দিয়েছে রোগীরা
মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের আল্ট্রাসনোগ্রামের রেডিওলজিস্ট ডাক্তার না আসায় শনিবার তার কক্ষে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে রোগীর আত্মীয়-স্বজনরা এতে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বেলা সাড়ে ১১ টা পর্যন্ত কক্ষ বন্ধ থাকে।
এ খবর পেয়ে মুন্সীগঞ্জ বি.এম.এর সভাপতি ডা.আক্তার হোসেন বাপ্পী ও আর.এম.ও ডা. এহসানুল করিম ঘটনাস্থলে এসে আল্ট্রাসনোগ্রামের রেডিওলজিস্ট ডাক্তার আব্দুল আল আমিনকে ডেকে নিয়ে জনতার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

এছাড়া আর কোনোদিন দেরি করে হাসপাতালে ডিউটিতে না আসার অঙ্গীকার ব্যক্ত করলে উত্তেজিত জনতা শান্ত হয়ে আল্ট্রাসনোগ্রামের রুম খুলে দেয়। এ সময় রুমের বাইরে গর্ভবতীসহ অর্ধশতাধিক রোগীদের অপেক্ষা করতে দেখা গেছে।

আর.এম.ও ডা:এহসানুল করিম জানান, এই রেডিওলজিস্ট ডাক্তার প্রতিদিন সকাল ৯টার স্থলে ১১টার দিকে আসে। এ ব্যাপারে একাধিকবার বলা হলেও ডাক্তার আল আমিন তা কর্ণপাত করেননি। এছাড়া ওই ডাক্তার হাসপাতালের সরকারি ডিউটি রেখে বিভিন্ন ক্লিনিক ও ডায়াগনোস্টিক সেন্টারে প্রাইভেট আল্ট্রাসনোগ্রাম করতে ব্যস্ত থাকেন।

হাসপাতালে অল্ট্রাসনোগ্রাম করতে আসা ৭৫ বছর বয়সের এক বৃদ্ধা রেহেলা বেগম বলেন, ‘দুই ঘণ্টা ধরে অল্ট্রাসনোগ্রাম করতে আইসা বইসা আছি। কিন্তু ডাক্তারের কোনো খবর নাই।’

[ad#bottom]

Leave a Reply