সিরাজদিখানে জমি অধিগ্রহণ বন্ধে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

জমি অধিগ্রহণ বন্ধে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার শিকারপুর মৌজার কৃষকরা। সেখানে ৪০ একর জমির উপর বাংলাদেশ ফলিত পুষ্টি ও মানবসম্পদ উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান কার্যালয় স্থাপনের জন্য জমি অধিগ্রহণের প্রাথমিক কাজ শেষ হয়েছে বলে প্রধানমন্ত্রীকে দেয়া আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, ৬/১০-১১ নম্বর এল এ (অধিগ্রহণ) কেইস-৩ ধারায় নোটিস জারির কারণে হতদরিদ্র কৃষকদের চাষাবাদ ও মাথা গোঁজার সম্বলটুকু হারাতে হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীকে দেয়া আবেদনে, শিকারপুর মৌজায় আবাদি জমি অধিগ্রহণ করে ভূমিহীন না করার অনুরোধ জানানো হয়। গত বছরের ২১ ডিসেম্বর মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে জমি অধিগ্রহণ করতে কৃষকদের কাছে নোটিস পাঠানো হয়। পরে জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মমতাজ উদ্দিন স্বাক্ষরিত একটি চিঠিতে ১১ জানুয়ারি শুনানির দিন ধার্য করা হয়। এদিন স্থানীয় কৃষকরা শুনানির দিন এক মাস পিছিয়ে দেয়ার আবেদন করলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ তা গ্রহণ করেনি।

এদিকে কৃষি মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়, মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার শিকারপুর মৌজার বাংলাদেশ ফলিত পুষ্টি ও মানবসম্পদ উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান কার্যালয়, গবেষণা প্রতিষ্ঠান ও উন্নতমানের স্কুল স্থাপনের জন্য ৪০ একর জমি অধিগ্রহণের প্রাথমিক সম্ভাব্যতা যাচাই করা হয়েছে। এ বিষয়ে চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত এখনো হয়নি। একইসঙ্গে বিকল্প কোনো এলাকায় জমি পাওয়া যায় কিনা সে বিষয়েও খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে।

সুজিৎ নন্দী:

[ad#bottom]

Leave a Reply