মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটে ফেরী চলাচলে চরম বিপর্যয়

দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় পদ্মা উত্তাল থাকায় মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটের ফেরী চলাচলে চরম বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। কখনো ফেরী চলাচল করছে আবার কখনো বন্ধ রাখা হচ্ছে। সর্বশেষ যাত্রী সাধারণের দাবির মুখে আজ শনিবার বিকেল থেকে ১টি রো রো ফেরী ও ২টি টানা ফেরী চালু করা হলেও তা যে কোনো সময় বন্ধ করা হতে পারে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। বর্তমানে ১১টি ফেরীসহ সকল লঞ্চ ও সীবোট চলাচল বন্ধ রয়েছে। দুযর্োগ আবহাওয়ায় গত ৩ দিনে পদ্মা উত্তাল থাকায় কয়েক দফা ফেরী চলাচল চালু করার পর মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটে সর্বশেষ শনিবার বেলা ১১ টার দিকে পুনরায় ফেরী চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়।

এদিকে ফেরী চলাচল বন্ধ থাকায় উভয়ঘাটে সহস্রাধিক যানবাহন আটকা পড়ে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এতে হাজার হাজার যাত্রী দিনভর চরম দুর্ভোগের শিকার হয়েছেন। অন্যদিকে জোয়ারের পানিতে কাওড়াকান্দি ঘাটের ১ ও ২ নং ফেরী ঘাট তলিয়ে গেছে। এছাড়া নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও পারাপারের সময় উত্তাল পদ্মায় ৩টি সীবোট ডুবির ঘটনাও ঘটেছে। এতে ২৫ যাত্রী আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

বিআইডবিস্নউটিসি ও বিআইডবিস্নউিটিএ’র সূত্র জানায়, দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টা থেকে মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটে চলাচলরত ১২টি ফেরী মধ্যে ১১টি ফেরী, ৮৭ টি লঞ্চ ও ৪ শতাধিক সীবোর্ট চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। যাত্রীদের চাপের মুখে মাঝে মধ্যে রো রো ফেরী বরকত চরম ঝুঁকির মধ্যে চালু রাখতে বাধ্য হচ্ছে কর্তৃপক্ষ। এর মধ্যে শুক্রবার রাতে ফেরী থেকে নামতে গিয়ে সুলতানউদ্দিন নামের এক যাত্রীর পদ্মায় সলিল সমাধি হয়েছে। তার বাড়ি খুলনা জেলায়।

বিআইডবিস্নউটিসির ম্যানেজার সিরাজুল হক জানান, যাত্রীদের চাপের মুখে ৩টি ফেরী চালু করা হলেও প্রচ- ঝড়ো হাওয়ায় পদ্মার উত্তাল পরিস্থিতির অবনতি হলে সেগুলো নোঙর করে রাখা হয়। রাতেও এ ফেরী ৩টি বন্ধ রাখা হবে বলে তিনি জানান।

Leave a Reply