টঙ্গীবাড়ীতে তালইকে খুন করে হার্ট এ্যাটাকে পুতরার মৃত্যূ

টঙ্গীবাড়ী থেকে মোজাফফর হোসেন ঃ টঙ্গীবাড়ীতে তালইকে খুন করে হার্ট এ্যাটাকে পুত্ররার মৃত্যূ হয়েছে। গতকাল সোমবার টঙ্গীবাড়ী উপজেলার সেরজাবাদ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, সেরজাবাদ গ্রামের মৃত সোনা মিয়া মোল্লার ছেলে রহিম মোল্লা (৪৫) কিছুটা মানষিক ভারসাম্যহীন ছিলো। অভাবের তাড়নায় তার স্ত্রী চলে গেলে আরো বেশি মানষিক ভারসম্যহীন হয়ে পড়ে। তার বড় ভাই মৃত শাহজাহান মোল্লার শশুর উপজেলার পুড়া গ্রামের মোঃ ফজলুল রহমান (৮৫) মেয়ের জামাতা বেঁেচ না থাকায় দির্ঘদিন যাবৎ মেয়ের সংসারের ভাল মন্দ দেখা শুনা করে আসছেন। এ বিষয়টি রহিম মোল্লার কাছে ভালো না লাগায়, সে ক্ষিপ্ত হয়ে গতকাল ভোর ৫ টায় ঘুমান্ত অবস্থায় ধাড়ালো ছুড়ি দিয়ে মোঃ ফজলুল রহমানকে জবাই করে হত্যা করে পালানোর সময় বাড়ীর লোকজনের চিৎকারে ভীত হয়ে হার্ট এ্যাটাকে মৃতূ বরন করে। পরে পুলিশ খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরন করেছে। এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত থানায় কোন অভিযোগ হয়নি। #

মোজাফফর হোসেন
টঙ্গীবাড়ী
তারিখঃ২০-০৬-১১
০১৯১৫৬৭৬৬৮২

মোঃ ফজলুল রহমান এর জবাই করা লাশের দৃশ্য। পাশে হার্ট এ্যাটাকে মারা যাওয়া খুনী পুত্রা রহিম মোল্লা এর মরদেহর ছবি।

——————————————-

টঙ্গিবাড়িতে বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যা, হৃদরোগে মরলো ঘাতকও

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়িতে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে ফজলুর রহমান সাইদুর (৮৫) নামে এক বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। বৃদ্ধকে হত্যার কিছুক্ষণ পর ঘাতক রহিম মোল্লাও মারা গেছে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে। আজ সোমবার ভোর ৬টার দিকে উপজেলার সেরজাবাদ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, উপজেলার সেরজাবাদ গ্রামে মেয়ের জামাই শাহজাহান মোল্লার বাড়িতে বেড়াতে আসেন বৃদ্ধ ফজলুর রহমান ওরফে সাইদুর মিয়া। সোমবার ভোরে ফজরের নামাজ পড়ে ঘরে গিয়ে বিছানায় শুয়ে বিশ্রাম নেয়ার সময় মানসিক ভারসাম্যহীন রহিম মোল্লা ফজলুর রহমানকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। পরে হত্যাকারী রহিম ঘটনাস্থল থেকে কিছু দূরে গিয়ে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যায়।

গ্রামবাসী জানায়, ঘাতক রহিম মোল্লা মানসিক ভারসাম্যহীন। কি কারণে এ হত্যার ঘটনা ঘটেছে তা কেউ বলতে পারছে না। টঙ্গিবাড়ি থানার ওসি মো. আব্দুল্লাহ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, লাশ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

শীর্ষ নিউজ
——————————————

মুন্সীগঞ্জে বৃদ্ধ খুন, ১০ মিনিটের মধ্যে মারা গেছে ঘাতক

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ি উপজেলায় সোমবার সকালে ঘুমন্ত অবস্থায় খুন হয়েছেন ফজিল হালদার (৭৫) নামের এক বৃদ্ধ। তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়িভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যার মিনিট দশেক পরে ঘটনাস্থলের কাছেই মৃত্যু হয় ঘাতক রহিম মোল্লার (৫০)।

উপজেলার সেরজাবাদ গ্রামে সোমবার সকাল ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

বৃদ্ধকে খুন করার পর রহিম হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যায় বলে জানায় পুলিশ ও এলাকাবাসী। সেও সেরজাবাদ গ্রামের বাসিন্দা ছিল।

সোমবার দুপুর দেড়টার দিকে ফজিল হালদার ও রহিম মোল্লার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

টঙ্গীবাড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ বাংলানিউজকে জানান, সেরজাবাদ গ্রামে বড় মেয়ের স্বামী শাহজাহান মোল্লার বাড়িতে দীর্ঘ দিন যাবত বসবাস করছিলেন ফজিল হালদার। সোমবার ভোরে এলাকার মসজিদে ফজরের নামাজ আদায় শেষে বাড়ি ফিরে ঘরে শুয়ে ছিলেন তিনি।

এ সময় হঠাৎ ধারালো অস্ত্র নিয়ে ওই বাড়িতে আসে রহিম মোল্লা। সে ফজিল হালদারের ঘরে ঢুকেই হাতের ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে।

বাড়ির লোকজন এগিয়ে আসার আগেই রহিমের এলোপাতাড়ি কোপে ঘটনাস্থলেই মারা যান ফজিল হালদার।

হত্যাকা- ঘটিয়ে ওই বাড়ি থেকে দৌড়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় সেরজাবাদ সড়কে লুটিয়ে পড়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে রহিম। হাসপাতালে নেওয়ার আগেই ঘটনাস্থলেই মারা যায় সে।

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েই তার মৃত্যু হয় বলে পুলিশ ও এলাকাবাসীর ধারণা।

এদিকে, কী কারণে এ হত্যাকা- ঘটেছে তা জানাতে পারেনি পুলিশ।

এলাকাবাসী ও পুলিশের দাবি, রহিম মোল্লা মানসিক রোগী ছিল।

নিহত ফজিল হালদারের মেয়ে নাসিমাও ঘাতকের মানসিক ভারসাম্যহীনতার কথা স্বীকার করেন।

তবে কী কারণে রহিম তার বাবাকে হত্যা করেছে তা জানাতে পারেননি নাসিমা।

রহিমের মানিসক ভারসাম্যহীনতার কথা স্বীকার করে নিহতের মেয়ের স্বামী শাহজাহান মোল্লা বলেন, তার শ্বশুরের সঙ্গে ঘাতক রহিমের কোনো বিরোধ ছিল বলে তিনি মনে করেন না।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

One Response

Write a Comment»
  1. potreeka guli ze , ze zar zar moto kore news kore tar boro proman ei ghotonati/3 ti potreeka 3 rokom shudhu nam e diyeche / boyos o vinyo vinyo/amar relative na hole hoyto beparti ami o jantam nahayre report

Leave a Reply