মুন্সীগঞ্জে পুলিশি হামলায় তেল-গ্যাস জাতীয় কমিটির সমাবেশ পণ্ড

মার্কিন কোম্পানি কনোকো-ফিলিপসের কাছে বঙ্গোপসাগরের দুটি গ্যাস ব্লক ইজারা দেওয়ার প্রতিবাদে মুন্সীগঞ্জ শহরে রোববার সকালে আয়োজিত তেল-গ্যাস-খনিজ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির বিক্ষোভ সমাবেশ পুলিশের দফায় দফায় হামলায় পণ্ড হয়ে গেছে। এ সময় কমিটির ২ সদস্য পুলিশের পিটুনিতে আহত হয়েছেন। পুলিশ সমাবেশের ব্যানার ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রোববার সকাল ১০টার দিকে তেল-গ্যাস-খনিজ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির মুন্সীগঞ্জ জেলা শাখার সদস্যরা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে পূর্ব-নির্ধারিত বিক্ষোভ সমাবেশ করতে গেলে সদর থানা পুলিশ তাতে বাধা দেয়। পুলিশের সঙ্গে এ সময় কমিটির সদস্যদের তর্কবিতর্ক শুরু হয়। একপর্যায়ে পুলিশের তাদের ধাওয়া দিয়ে পিটুনি শুরু করলে বিক্ষোভকারীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যান।

পরে শহরের মেথরপট্টি মোড় ও সুপার মার্কেট এলাকায় দু’দফায় বিক্ষোভ করতে গেলে পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ধাওয়া দেয় ও কর্মীদের ওপর চড়াও হয়।

এতে তেল-গ্যাস রক্ষা কমিটির সদস্য নাসির উদ্দিন নাসু, রাজিব আহত হন।

তেল-গ্যাস রক্ষা কমিটির ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক শ.ম. কামাল বাংলানিউজকে জানান, পুলিশ বিক্ষোভ সমাবেশে ধাওয়া দিয়ে কর্মীদের মারধর করে, ব্যানার ছিনিয়ে নেয় এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। পুলিশের বাধা, ধাওয়া ও পিটুনিতে তাদের বিক্ষোভ সমাবেশ পণ্ড হয়ে যায়।

এ ব্যাপারে সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মজিবুর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, ‘আমরা শুধু সমাবেশ করতে নিষেধ করেছি। ব্যানার ছিনতাই, ধাওয়া ও পিটুনি দেওয়া হয়নি।’

এদিকে, এ ঘটনায় বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবে তেল-গ্যাস রক্ষা কমিটির জেলা শাখার নির্যতিত কর্মীরা সাংবাদিকদের কাছে পুলিশের বর্বরোচিত হামলার ঘটনা খুলে বলেন।

এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বক্তব্য রাখেন কমিটির ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক শ.ম. কামাল, সদস্য মাসুদ ফকরী খোকন, হামিদা বেগম প্রমুখ।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
————————

মুন্সীগঞ্জে তেল গ্যাস কমিটির বিক্ষোভে বাধা, আহত ২

পুলিশের বাধার মুখে মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে তেল গ্যাস রক্ষা কমিটির বিক্ষোভ সভা পণ্ড হয়ে গেছে। এ সময় পুলিশের পিটুনিতে ২ জন আহত হয়েছে। আজ রোববার বেলা ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বেলা ১১টার দিকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে তেল-গ্যাস রক্ষা কমিটির পূর্ব-নির্ধারিত বিক্ষোভ সভা করতে গেলে সদর থানা পুলিশ তাতে বাধা দেয় এবং ব্যানার ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

এ সময় পুলিশের ধাওয়া খেয়ে বিক্ষোভকারীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে পড়ে। পরে শহরের মেথরপট্টি মোড়ে ও সুপার মার্কেট এলাকায় দু’দফায় বিক্ষোভ করতে গেলে সদর থানা পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ধাওয়া দেয় ও কর্মীদের উপর চড়াও হয়। এতে তেল-গ্যাস রক্ষা কমিটির সদস্য নাসির উদ্দিন নাসু ও রাজিব নামের ২ জন আহত হয়। পরে তারা মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশের বর্বরোচিত হামলার ঘটনা তুলে ধরেন। এ সময় বক্তব্য রাখেন কমিটির ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক শ ম কামাল, সদস্য মাসুদ ফকরী খোকন, হামিদা বেগম, দুলাল সাহা, শহীদ-ই হাসান তুহিন প্রমুখ। সদর থানার ওসি মো. মজিবুর রহমান অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমরা শুধু সমাবেশ করতে নিষেধ করেছি।

শীর্ষ নিউজ
————————

পুলিশের হামলায় মুন্সীগঞ্জে তেল-গ্যাস জাতীয় কমিটির সমাবেশ পণ্ড

সাকিল হাসান, মুন্সীগঞ্জ: মার্কিন কোম্পানি কনোকো-ফিলিপসের কাছে বঙ্গোপসাগরের দুটি গ্যাস ব্লক ইজারা দেওয়ার প্রতিবাদে মুন্সীগঞ্জ শহরে আজ সকালে আয়োজিত তেল-গ্যাস-খনিজ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির বিক্ষোভ সমাবেশ করতে গেলে পুলিশের দফায় দফায় হামলার মুখে পণ্ড হয়ে যায়।
এ সময় পুলিশের পিটুনিতে কমিটির ২ সদস্য আহত হয়েছেন। সমাবেশের ব্যানার পুলিশ ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মুন্সীগঞ্জ জেলা শাখার তেল-গ্যাস-খনিজ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা কমিটির সদস্যরা সকাল ১০টার দিকে জেলা প্রশাসকের কাযার্লেয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করতে গেলে সদর থানা পুলিশ তাতে বাধা দেয়। পুলিশের সঙ্গে এ সময় কমিটির সদস্যদের তর্কবিতর্ক শুরু হয়। এক পযার্য়ে পুলিশের তাদের ধাওয়া দিয়ে পিটুনি শুরু করলে বিক্ষোভকারীরা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়।

পরে শহরের মেথরপট্টি মোড় ও সুপার মার্কেট এলাকায় বিক্ষোভ করতে গেলে পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ধাওয়া দেয় ও কর্মীদের ওপর চড়াও হয়।

এতে তেল-গ্যাস রক্ষা কমিটির সদস্য নাসির উদ্দিন নাসু ও রাজিব আহত হন।

তেল-গ্যাস রক্ষা কমিটির ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক শ.ম. কামাল জানান, পুলিশ বিক্ষোভ সমাবেশে ধাওয়া দিয়ে কর্মীদের মারধর করে, ব্যানার ছিনিয়ে নেয় এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। পুলিশের বাধা, ধাওয়া ও পিটুনিতে তাদের বিক্ষোভ সমাবেশ পণ্ড হয়ে যায়।

এ ব্যাপারে সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মজিবুর রহমান বলেন, আমরা শুধু সমাবেশ করতে নিষেধ করেছি। ব্যানার ছিনতাই, ধাওয়া ও পিটুনি দেওয়া হয়নি।’
এদিকে, এ ঘটনায় বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবে তেল-গ্যাস রক্ষা কমিটির জেলা শাখার কর্মীরা সাংবাদিকদের কাছে পুলিশের হামলার ঘটনা খুলে বলেন।
এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বক্তব্য রাখেন কমিটির ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক শ.ম. কামাল, সদস্য মাসুদ ফকরী খোকন, হামিদা বেগম প্রমুখ।

বিডি রিপোর্ট ২৪
————————

Leave a Reply