চরমুক্তারপুরে ৫০ যাত্রী নিয়ে লঞ্চডুবি, নারীর লাশ উদ্ধার

মুন্সীগঞ্জের চরমুক্তারপুর এলাকার ধলেশ্বরী ও শীতলক্ষা নদীর মাঝামাঝি স্থানে বুধবার রাতে ৫০ জন যাত্রী নিয়ে একটি লঞ্চ ডুবে গেছে। এ পর্যন্ত একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তার নাম মনোয়ারা (৪০)। মুন্সীগঞ্জের মুক্তারপুর নৌ-ফাঁড়ি পুলিশের ইনচার্জ এসআই মো. সেলিম বাংলানিউজকে জানান, রাত সাড়ে ৭ টার দিকে লঞ্চটি চরমুক্তারপুর এলাকার শাহ সিমেন্ট কারখানার সামনে ডুবে যায়। এ ঘটনায় কতজন যাত্রী নিখোঁজ রয়েছে কিংবা কতজন মারা গেছে তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।

নৌকা ডুবিতে ১০-১২ জন নিহত হয়ে থাকতে পারে বলে স্থানীয় একটি সূত্র আশংকা প্রকাশ করেছে।

সাহাবুদ্দিন নামে ডুবে যাওয়া লঞ্চের এক যাত্রীকে আহত অবস্থায় মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সন্ধ্যা সোয়া ৭ টায় ৫০ জন যাত্রী নিয়ে নারায়নগঞ্জ লঞ্চঘাট ছেড়ে আসে এমভি মদিনা নামের লঞ্চটি।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
———————-

শীতলক্ষ্যায় যাত্রীবাহী লঞ্চডুবি: বহু হতাহতের আশঙ্কা

মুন্সিগঞ্জের শীতলক্ষ্যায় আজ বুধবার সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় যাত্রবাহী লঞ্চডুবির ঘটনা ঘটেছে। লঞ্চটিতে দু’শতাধিক যাত্রী ছিল বলে জানা গেছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ৪০-৫০ জন যাত্রী সাঁতরে ও ট্রলারে করে তীরে উঠতে সক্ষম হয়েছে। এরমধ্যে আহত দু’জনকে মুন্সিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হাসপাতালে নেয়ার পর এক যাত্রীর মৃত্যু হয়েছে বলে শীর্ষ নিউজ ডটকমকে জানান হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. এহসানুল কবির। উদ্ধারকারীদল ঘটনাস্থলে রয়েছে। তারা লঞ্চের অবস্থান সনাক্তের চেষ্টা করছেন।

আহত যাত্রী রাকিবুল ইসলাম শীর্ষ নিউজ ডটকমকে জানান, হরতালের কারণে নৌ-পথকে যাত্রীরা নিরাপদ ভেবে লঞ্চে যাচ্ছিলেন। ‘মদীনার আলো’ নামে লঞ্চটি চাঁদপুরের মতলব থেকে নারায়ণগঞ্জগঞ্জে যাচ্ছিল। ধলেশ্বরী নদী থেকে শীতলক্ষ্যায় প্রবেশের পরপরই যাত্রীবাহী লঞ্চের সঙ্গে তেলবাহী জাহজের সংঘর্ষে লঞ্চটি ডুবে গেছে। এতে এক শিশুসহ ৪০-৫০ যাত্রী উদ্ধার হলেও দেড় শতাধিক যাত্রী এখনো নিখোঁজ রয়েছে।

শীর্ষ নিউজ
———————-

Leave a Reply