আপাতত বি. চৌধুরী-অলির সমর্থন আদায়, পরে দলে ভেড়ানোর প্রস্তাব

বিএনপি সরকারবিরোধী চলমান আন্দোলন জোরালো করতে নানা কৌশল অবলম্বন করেছে। এরই অংশ হিসেবে জোটের আয়তন বাড়ানোর পাশাপাশি দলের পুরনো নেতারা যারা দল থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর রাজনৈতিক দল গঠন করেছেন তাদের সমর্থন পেতে ইতিমধ্যে কাজ শুরু করেছে। পুরনো নেতারা ক্রমশ সরকারবিরোধী আন্দোলনে বিএনপিকে সমর্থন দিলে ও আন্দোলনে জোরালো ভূমিকা রাখতে পারলে এরপর তাদেরকে দলে ফেরানোর প্রস্তাব দেয়া হবে। রাজি হলে তাদেরকে সম্মানজনক পদও দেয়া হবে। বিএনপি যাদেরকে দলে ফেরানোর কথা ভাবছে এরমধ্যে রয়েছে- বিকল্প ধারার প্রধান সাবেক প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরী ও এলডিপি’র প্রধান কর্নেল (অব.) অলি আহমেদ বীরবিক্রম।

সরকারবিরোধী আন্দোলন সফল করতে বিকল্প ধারা, এলডিপি’র সমর্থন ইতিবাচক হবে বলে মনে করছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। ঘনিষ্ঠ সূত্র জানায়, বি. চৌধুরী ও কর্নেল অলি আহমেদকে নিয়ে বিএনপি’র ভেতরে মতদ্বৈধতা রয়েছে। প্রভাবশালী নেতাদের কেউ কেউ চাইছেন তাদের দলে ফেরাতে। আবার বেশ কয়েকজন নেতা এর বিরোধিতাও করছেন। তারা বলছেন, তাদেরকে দলে ফেরানোর প্রয়োজন নেই।

তাদের অতীত কর্মকাণ্ড সকলের জানা। আরও বলেছেন, দলের ভেতরে গুরত্বপূর্ণ কোন পদ না চাইলে তারা বিএনপি’র সঙ্গে জোটে যোগ দিতে পারেন। জোটের শরিক হিসেবে হিসাব-নিকাশ হবে। কেন্দ্রীয় নেতাকর্মীদের ছাড়াও বিশেষ করে মাঠপর্যায়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ক্ষোভ রয়েছে। এখন দলে ভেড়ানো হলে মাঠপর্যায়ের নেতাকর্মীদের মধ্যে এক ধরনের মিশ্র প্রতিক্রিয়া হবে। ক্ষোভ বাড়বে। বেগম খালেদা জিয়ার ঘনিষ্ঠ সূত্র জানায়, দলের কয়েকজন নেতা চান তারা দলে ফিরে আসুন। দলের চেয়ারপারসন চাইছেন, আপাতত তারা বিএনপি’র সঙ্গে সরকারবিরোধী সকল আন্দোলনে সমর্থন দেবেন। গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবেন। দলের নেতাকর্মীদের যে ক্ষোভ রয়েছে তাদের প্রতি প্রশমিত হবে। ইমেজ বাড়বে। তাদের প্রতি সহমর্মিতাও তৈরি হবে নেতা কর্মীদের। সূত্র জানায়, বিএনপি বি. চৌধুরী ও কর্নেল অলি আহমেদ-এর সমর্থন চাওয়ার কারণে তারা মনে করতে পারেন বিএনপি’র কাছে যা চাইবেন তা পাবেন। এটা সম্পূর্ণ ভুল ধারণা হবে। কারণ চাইলেও সব পাবেন না। এ ব্যাপারে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার একজন উপদেষ্টা বলেন, তারা নিজেরাও বোঝেন রাজনীতিতে তাদের অবস্থান কি? বিএনপি থেকে বের হওয়ার পর কি করতে পেরেছেন। রাজনীতিতে তাদের অবস্থান-ই বা কতখানি সুদৃঢ় হয়েছে। তাই আহামরি কিছু চাইলেই পাবেন- এমন নয়। তাদেরকেও চাইতে হবে রয়েসয়ে।

Leave a Reply