পুলিশ প্রতিবেদন ছাড়াই কয়েকশ পাসর্পোট বিতরণের অভিযোগ

মুন্সীগঞ্জে পুলিশ প্রতিবেদন ছাড়াই আঞ্চলিক পাসর্পোট অফিস থেকে কয়েকশ পাসর্পোট বিতরণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঢাকা ও মুন্সীগঞ্জ পাসর্পোট অফিস এবং জেলার ডিএসবি শাখার একটি চক্র টাকার বিনিময়ে পুলিশ প্রতিবেদন ছাড়াই এসব পাসর্পোট বিতরণ করছে বলে আজ সোমবার গোয়েন্দা সূত্র জানিয়েছে। গোয়েন্দা শাখার একাধিক কর্মকর্তা ও পুলিশ গত এক সপ্তাহ ধরে ওই চক্রকে আটক করার লক্ষ্যে গোয়েন্দা নজরদারি করছে।

গোয়েন্দা সংস্থার এক কর্মকর্তা জানান, ঢাকার একটি সিন্ডিকেট মুন্সীগঞ্জ আঞ্চলিক পাসর্পোট অফিসের কতিপয় কর্মকর্তার সঙ্গে যোগসাজশ করে প্রতিমাসে কয়েকশ পাসর্পোট তৈরি করে নিয়ে যাচ্ছেন। যার কোনো পুলিশ প্রতিবেদন নেই। এছাড়া স্থানীয় অর্ধশতাধিক দালালও টাকার বিনিময়ে পুলিশ প্রতিবেদন ছাড়াই পাসপোর্ট বানিয়ে নিচ্ছে।

কর্মকর্তা আরো জানান, তাদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে মুন্সীগঞ্জ ডিএসবি শাখার কতিপয় ব্যক্তিও ঘটনাস্থলে তদন্তে না গিয়ে টাকার বিনিময়ে প্রতিবেদন দিয়ে দিচ্ছেন। বিষয়টি প্রকাশ হয়ে পড়লে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশে সিন্ডিকেট সদস্যদের পাসর্পোটসহ হাতেনাতে আটকের নির্দেশ প্রদান করেন। নির্দেশ পেয়ে গোয়েন্দা শাখার একধিক কর্মকর্তা ও পুলিশ গত এক সপ্তাহ ধরে শহরের পাঁচঘরিয়াকান্দিসহ পাসর্পোট অফিসে নজরদারি শুরু করেন।
এ প্রসঙ্গে আজ মুন্সীগঞ্জের পুলিশ সুপার মো. শফিকুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তিনি একটি অনুষ্ঠানে ব্যস্ত থাকায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। এছাড়া গত ২ দিনে একাধিকবার চেষ্টা করে মুন্সীগঞ্জ আঞ্চলিক পাসর্পোট অফিসের কর্মকর্তাদের সেলফোন বন্ধ পাওয়া গেছে। সংশ্লিষ্ট একজন জানান, অফিস চলাকালীন সকল কর্মকর্তার সেলফোন বন্ধ রাখা হয়।

প্রসঙ্গত, গোয়েন্দা নজরদারির কারণে গত শুক্রবার ২১টি পাসর্পোটসহ সিন্ডিকেটের সদস্য ঢাকার ডিএসবির এক কনস্টেবলকে আটক করা হয়েছে।

শীর্ষ নিউজ

Leave a Reply