ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে দুর্ঘটনায় নিহত ৬: অবরোধ

ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার নীমতলা এলাকায় বুধবার যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় সিএনজিচালিত এক অটোরিক্সার আরোহী ও পথচারীসহ ৬ জন নিহত ও অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে সিএনজি আরোহী ৪ ব্যক্তি ঘটনাস্থলেই নিহত হন। এছাড়া অপর ২ জনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় শ্রীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।

এ ঘটনার পর উত্তেজিত এলাকাবাসী দুপুর ১২টা থেকে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেছেন।

মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

এ বিষয়ে সিরাজদিখান উপজেলার ইউএনও দাউদুল ইসলাম ও ওসি মাহবুবুর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, ‘বুধবার বেলা পৌনে ১২টার দিকে ইলিশ পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস ঢাকা থেকে মাওয়া যাচ্ছিল। পথিমধ্যে বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সামনে থাকা সিএনজিচালিত অটোরিক্সা ও মহানগর পরিবহনের একটি বাসকে সজোরে ধাক্কায় দিলে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।

নিহতদের মধ্যে মা ও ছেলের পরিচয় পাওয়া গেছে। এরা হচ্ছেন মা মীম (২০) ও শিশুপুত্র মাইনুল (৬ মাস)।

এ দিকে, আহতদের মধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ১০ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ ঘটনার পর দুপুর ১২টা থেকে উত্তেজিত এলাকাবাসী ঢাকা-মাওয়া মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেছেন। ফলে এ মহাসড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
———————

সিরাজদিখানে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৫

মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কের নিমতলী এলাকায় আজ বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে যাত্রীবাহী বাস একটি সিএনজিকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই চারজন এবং হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরেকজনের মৃত্যু হয়।

মুন্সীগঞ্জের এএসপি সার্কেল সাইফুল ইসলাম জানান, মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে। দুপুর দেড়টায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ওই মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আজ বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নিমতলীতে ইলিশ পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস একটি সিএনজিকে চাপা দেয়। এতে পাঁচজন নিহত হয়। আহত ব্যক্তিদের স্থানীয় হাসপাতাল ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। স্থানীয় লোকজন বাসটিকে ধাওয়া করলে চালক বাসটি নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। এ সময় রাস্তায় আরও কয়েকজন আহত হয়।

প্রথম আলো
———————

সিরাজদিখানে বাস-সিএনজি সংঘর্ষে শিশুসহ নিহত ৫, অবরোধ

ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কের সিরাজদিখানে বাস ও সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষে ৫ জন নিহত হয়েছে। দুর্ঘটনায় আহত হয়েছে আরো ১০ জন। নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। আজ বুধবার বেলা পৌনে ১২ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। আহতরা সবাই পথচারী। তাদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতদের পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। উত্তেজিত জনতা ঘাতক বাসটিতে আগুন ধরিয়ে দেয় ও সড়ক অবরোধ করে। এতে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায় এবং দু’পাশে আটকা পড়েছে শত শত গাড়ি। খবর পেয়ে র‌্যাব-১১ ও হাইওয়ে এবং থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ঢাকা থেকে মাওয়াগামী ইলিশ পরিবহনের একটি যাত্রীবাহি বাস সিরাজদিখানের নিমতলায় ঢাকাগামী একটি সিএনজিকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই সিএনজি আরোহী ৪ জন নিহত হয়। অবস্থা বেগতিক দেখে চালক যাত্রীবাহি বাসটি নিয়ে দ্রুত পালানোর সময় ৮ থেকে ১০ পথচারীকে চাপা দেয়। এতে আহত ১ শিশু পথচারীকে হাসপাতালে নেয়ার পর মারা যায়।

র‌্যাব-১১’র কমান্ডার লুৎফর রহমান ও হাইওয়ে পুলিশের সার্জেন্ট আনিস ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চলছে।

শীর্ষ নিউজ
———————

Leave a Reply