বুড়িগঙ্গায় ট্রলার ডুবির ঘটনায় আরও ২ লাশ উদ্ধার

বুড়িগঙ্গা নদীতে যাত্রীবাহী ট্রলার ডুবির ঘটনায় ৩ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের দু’জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। এরা হলো- মোস্তাফিজুর রহমান রিপন (২৫) এবং অপরজন মো. আমির হোসেন (৪০)। রিপনের বাবার নাম ডা. মো. বছির আহমেদ। বাড়ি বরিশালের মেহেন্দীগঞ্জ থানার খাস্তাখালী গ্রামে। স্ত্রী মনিকাসহ মিটফোর্ড হাসপাতালে এমএলএসএস পদে চাকরি করতো। থাকতো কামরাঙ্গীর চর এলাকায়। অপরজনের নাম মো. আমীর হোসেন (৪০)। বাবার নাম মৃত আবদুল খালেক। বাড়ি মুন্সীগঞ্জ জেলার লৌহজং থানার কাশারিয়া গ্রামে। বর্তমানে তিনি কামরাঙ্গীর চর এলাকায় বসবাস করেন। লাশ দু’টি শনিবার গভীর রাতেই ফায়ার সার্ভিসের ডুবরিদল উদ্ধার করে। পরিচয়বিহীন লাশটি গতকাল সকালে বাদামতলী ঘাট এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়। ভোর থেকেই কেরানীগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের ডুবরিদল নিখোঁজদের সন্ধান করতে নদীতে টহল দিতে থাকে। তবে নদীতে কোন লাশের সন্ধান আর পাওয়া যায়নি। এদিকে ট্রলার ডুবির ঘটনাস্থলে নদীর দুইপাড়ে সকাল থেকেই উৎসুক লোকজন ভিড় জমাতে থাকে। নদীর দুইপাড়েই ট্রলার ডুবির ঘটনায় নিখোঁজদের সন্ধানে কোন স্বজনদের খোঁজখবর নিতেও দেখা যায়নি। এতে থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের লোকজন ধারণা করছে হয়তো ট্রলার ডুবির ঘটনায় আর কোন লোকের প্রাণহানির ঘটনা নাও ঘটতে পারে। এদিকে দুপুরে উদ্ধারকারী জাহাজ রুস্তম ঘটনাস্থল থেকে নদীতে নিমজ্জিত ট্রলারটি উদ্ধার করলেও সেখানে কোন লাশের খোঁজ মেলেনি। উল্লেখ্য, গত শনিবার রাত সাড়ে ৮টায় বাবুবাজার ঘাট থেকে ৭০-৮০ জন যাত্রী নিয়ে কামরাঙ্গীর চরের মাদবর বাজার ঘাটে যাওয়ার পথে মিটফোর্ড বালুঘাট বরাবর বুড়িগঙ্গা নদীতে বালুবাহী বলগেটের ধাক্কায় ট্রলারটি নদীতে ডুবে যায়। এ ব্যাপারে কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় মামলা হয়েছে।

মানবজমিন

Leave a Reply