সিরাজদিখানে ইছামতির ভাঙন কোয়াইন ইউনিয়ন নিশ্চিহ্ন হওয়ার আশঙ্কা

ভরা বর্ষায় মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে শান্ত ইছামতি নদী অশান্ত হয়ে উঠেছে। ইছামতির ভাঙনে জেলার সিরাজদিখান উপজেলার কেয়াইন ইউনিয়ন নিশ্চিহ্ন হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। হুমকির মুখে পড়েছে মসজিদ, স্কুল, ফসলি জমিসহ বিস্তীর্ণ জনপদ। এক সপ্তাহের ব্যবধানে উপজেলার কেয়াইন ইউনিয়নের শুলপুর গ্রামের একটি পুরনো মন্দির, কাউয়ামোড়া বাজার ও এক কিলোমিটার হাঁটাপথ বিলীন হয়েছে ইছামতিতে। শুলপুর এলাকার অর্ধশত কৃষক ফসলি জমি হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। কৃষকের প্রায় ২৫ একর ফসলি জমি এক সপ্তাহের ব্যবধানে ইছামতিতে নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে। সিরাজদিখানে এবারই প্রথম ইছামতিতে ভাঙন দেখা দিয়েছে বলে এলাকাবাসী জানান। এদিকে, কাউয়ামোড়া বাজারটি ইছামতিতে বিলীন হয়ে যাওয়ায় এখন রাস্তার পাশে বাজার বসছে।

কাউয়ামোড়া হাঁটাপথটি যে কোনো সময় ইছামতিতে হারিয়ে যেতে পারে বলে গ্রামবাসীর আশঙ্কা। কোয়াইন ইউপির চেয়ারম্যান আবদুল বারেক জানান, ইছামতি হঠাৎই ফুঁসে উঠেছে। এবারই প্রথম ইছামতি এ অঞ্চলের বাসিন্দাদের বসতি-বাজার-জমি কেড়ে নিচ্ছে। মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোঃ আজিজুল আলমের কাছে ভাঙনরোধে জরুরিভিত্তিতে ইছামতির তীর ঘেঁষে বাঁধ নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী। মুন্সীগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলী আরিফুর রহমান জানান, এখনও পর্যন্ত কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি ভাঙনরোধে।

সমকাল

Leave a Reply