মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটে বিকল্প পথে ফেরি চলাচল শুরু

সাড়ে ৩ ঘন্টা পর ফেরি বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিন উদ্ধার
মোহাম্মদ সেলিম, মুন্সীগঞ্জ থেকে : মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটে শনিবার বেলা আড়াইটা হতে বিকল্প চ্যানেলে ফেরি চলাচল শুরু করেছে। এই নতুন চ্যানেলে নদী পার হতে সময় লাগছে প্রায় আড়াই ঘন্টা। এই চ্যানেলে প্রথম ছেড়ে যাওয়া ফেরিটি বিকাল ৫টায় কাওড়াকান্দি পৌছেছে। সময় একটু বেশী লাগলেও এতে ঈদে ঘরমুখো মানুষের বিড়ম্বনা লাঘব হবে বলে মনে করছে মাওয়া বিআইডব্লিউটিসি অফিসের এজিএম আশিকুজ্জামান। তিনি জানান, ১৬টি ফেরিই চলাচল করছে। বর্তমান রানিং চ্যানেলের মাগুরখন্ড পয়েন্টে পানি স্বল্পতার কারণে ফেরি চলাচলে মারত্মক ব্যাঘাত ঘটে। মাগুরখন্ড চ্যানেলের পাশাপাশি শনিবার বিকল্প চ্যানেল কবুতরখোলা চ্যানেল দিয়েও ফেরি চলাচল শুরু করেছে।

বড় ফেরিগুলো নতুন এই চ্যানেল মাওয়া-কবুতরখোলা-নাওডুবা-কাওড়াকান্দি চলাচল করেছে। তবে ছোট ফেরিগুলো চলছে শর্টকার্ট মাগুরখন্ড চ্যানেলে।

এদিকে শনিবার মাওয়া ঘাট থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরের শ্রীনগরের ছনবাড়িতে সিরিয়াল করে রাখা হয় পণ্যবাহী ট্রাক। বাস ও প্রাইভেট কার পার করার পর দুপুর থেকে অপেক্ষারত ট্রাকও পাড় করা হচ্ছে। তাই মাওয়ায় যানজট এখন হ্রাস পেয়েছে। বিকালে ঘাটে কোন যানজট ছিল না বলে জানিয়েছেন বিআইডব্লিউটিসির ম্যানেজার সিরাজুল হক।

অপর দিকে দীর্ঘ সাড়ে ৩ ঘন্টা পর উদ্ধার হয়েছে রো রো ফেরি বীর শ্রেষ্ঠ রুহুল আমীন। চ্যানেলে পানি স্বল্পতার করণে মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটের মাগুরখন্ড চ্যানেলটি পারি দিতে পারছিলনা ফেরিটি। শুক্রবার সকালে নৌপরিবহন মন্ত্রী এই ফেরিটি আনু মাগুরখন্ড চ্যানেলে পানি স্বল্পতার কারণে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন। কিন্তু সন্ধ্যা পোনে ৭ টায় ডুবো চরে আটকে যায়। পানি বৃদ্ধি পাবার পর উদ্ধারকারী জাহাজ আইটি-৮-৩৯০ দিয়ে চ্যানেলটি পার করে রাত সোয়া ১০ টার দিকে মাওয়া ঘাটে নিয়ে আসে।

মুন্সিগঞ্জ নিউজ

Leave a Reply