মুন্সীগঞ্জে ফল বাগানের দুই শতাধিক গাছ কর্তন

সদর উপজেলার রনছ হাওলাপাড়া গ্রামের একটি ফল বাগানের দুই শতাধিক ফলজ বৃক্ষ কেটে ফেলা হয়েছে। এই বর্বরোচিত ঘটনায় বাগানের মালিক আব্দুর রউফ শেখ বিস্মিত। বাগান মালিক জানান, আট বছর বয়সী সারি সারি লেবু, বাউকুল, পেয়ারা। সাথে রয়েছে কলা ও পেঁপেসহ নানা জাতের সবুজ গাছের সমারোহ। বাগানটি দেখলে যে কারো মন ছুয়ে যাবে। কোন দানব ছাড়া এই ফল গাছগুলো এভাবে কাটতে পারে না। এমন হিংস্রতার সঠিক কারণ খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। মুন্সীগঞ্জ সদর থানায় লিখিত অভিযোগ করলেও রহস্যজনক কারণে পুলিশ কোন ভূমিকা নিচ্ছে না। গতকাল শুক্রবার বিকালে বৃক্ষপ্রেমিক সদর উপজেলার উত্তর কেওয়ার গ্রামের বাসিন্দা আব্দুর রউফ শেখ মুন্সীগঞ্জ প্রেসক্লাবে এসে সেই দৃশ্যের বর্ণনা করতে গিয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। তিনি জানান, বুধবার ভোরে বৃক্ষ নিধনের ঘটনা ঘটলেও পুলিশ নিশ্চুপ। থানা থেকে পরামর্শ দেয়া হচ্ছে— ‘আদালতে মামলা করেন’।

এ ব্যাপারে সদর থানার ওসি (তদন্ত) মজিবুর রহমান জানান, ঘটনাটি স্থানীয়ভাবে মীমাংসার চেষ্টা চলছে। তা না হলে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ইত্তেফাক
—————–

মুন্সীগঞ্জে বাগান দখলের চেষ্টা, ২০০ গাছ কর্তন

মুন্সীগঞ্জে পূর্বশত্রুতার জের ধরে একটি ফল বাগানের প্রায় ২ শতাধিক গাছের চারা কেটে ফেলেছে সন্ত্রাসীরা। সদর উপজেলার রনছ হাওলা পাড়া গ্রামে আবদুর রউফ শেখের বাগানে ঘটে এ ঘটনা। সন্ত্রাসীরা লেবু, বাউকূল, পেয়ারা, কলা, পেঁপে ও কাঁঠগাছসহ প্রায় ২শ’ গাছ কেটে ফেলেছে। এ ব্যাপারে সদর থানায় আবদুর রউফ শেখ বাদী হয়ে লিখিত অভিযোগ করেছেন। কিন্তু পুলিশ এখনও পর্যন্ত মামলা এন্ট্রি করেনি। বাদী পুলিশের রহস্যজনক ভূমিকার কথা উল্লেখ করে বলেন, তাকে পুলিশ বলে যে, ওদের বিরুদ্ধে আপনি থানায় মামলা করতে পারবেন না বরং আপনি কোর্টে মামলা করেন। তবে বাদী থানায় এসে অভিযোগ দায়ের করার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ উপস্থিত হলে গাছ কর্তনরত অবস্থা থেকে সন্ত্রাসীরা নির্বিঘ্নে সরে পড়ে। বুধবার ভোর থেকে পরিকল্পিতভাবে প্রকাশ্যে সন্ত্রাসীরা এ ঘটনা ঘটালেও এখনও পর্যন্ত পুলিশ মামলা গ্রহণ না করায় বাদী ও তার পরিবারের লোকজন ভয়ে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, মহাকালী ইউনিয়নের উত্তর কেওয়ার গ্রামের বাসিন্দা আবদুর রউফ শেখ প্রায় ৩০ বছর আগের ক্রয়কৃত এই ভিটা জমিতে প্রায় ৮ বছর আগে বিভিন্ন ফলদ, বনজ ও ওষুধি গাছের চারা রোপণ করে বাগান তৈরি করে। তার আপন ভাই আবদুল মন্নাফ শেখ দীর্ঘ দিন তার জায়গা সম্পত্তি দখলের চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়ে এ বাগানের গাছ কেটে ফেলে বলে জানান আবদুর রউফ শেখ। মন্নাফ শেখের তেমন কোন জায়গা সম্পত্তি না থাকায় আবদুর রউফ শেখ অস্থায়ীভাবে থাকার জন্য প্রায় দুই শতাংশ জায়গা দেন কয়েক মাস আগে। এরই মধ্যে তারা আশপাশের জায়গা দখল করতে থাকে।

এতে রউফ বাধা দেয়ায় তার বাগানের গাছ কাটা বিভিন্ন ধরনের হুমকি ধামকিসহ হত্যার হুমকি দিচ্ছে। জায়গা দখলের চেষ্টাকারী মন্নাফ শেখের ৭ ছেলে থাকায় জোরপূর্বক তিনি এসব কর্মকাণ্ড চালাচ্ছেন। রউফ শেখের একমাত্র ছেলে সোহেল আনোয়ার বলেন, আমি এসব সন্ত্রাসীর আতঙ্কে ঢাকা থাকি। আমার চাচা ও চাচাতো ভাইদের এসব কর্মকাণ্ড ঘটানোর জন্য ইন্ধন জোগাচ্ছেন শহরের মাঠপাড়া গ্রামের সাবেক কমিশনার আরিফ ও তার ভাই মামুন। আবদুর রউফ শেখ বলেন, সাবেক কমিশনার আরিফ ও তার ভাই মামুন আমার বাড়িতে এসে প্রকাশ্যে হুমকি দিয়ে আমাকে বলে গেছেন গাছের সঙ্গে বেঁধে রেখে আমার জায়গা সম্পত্তি দখল করবে। তারা আরও বলেন, আমরা টেনিস ক্লাবের সদস্য। এসপি ডিসির সঙ্গে খেলাধুলা করি। অতএব আমি যা বলব তাই হবে। এ ব্যাপারে সদর থানার তদন্ত কর্মকর্তা মজিবুর রহমান বলেন, যেহেতু দুই ভাইয়ের মধ্যে জায়গা জমি নিয়ে আগে থেকেই বিরোধ চলে আসছে সে জন্য মামলা এন্ট্রি করা হয়নি। স্থানীয় ভাবে মীমাংসার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

মানবজমিন

Leave a Reply