ধলেশ্বরীতে নৌকা বাইচ ॥ মানুষের ঢল

দেশজ সংস্কৃতির অন্যতম ঐতিহ্য নৌকা বাইচের বিশাল উৎসব বসেছিল মুন্সীগঞ্জের ধলেশ্বরীতে। শুক্রবার বিকেলে এ উৎসবে লাখো মানুষের ঢল নামে। বন্দরনগরী মিরকাদিম থেকে মুন্সীগঞ্জ লঞ্চঘাট পর্যনত্ম ৩ কিলোমিটার নদীর দু’তীর ছিল কানায় কানায় পূর্ণ। তিল ধারণের ঠাঁই ছিল না মুক্তারপুর ব্রিজে। এ ছাড়া হাজার হাজার নারী-পুরম্নষ বিভিন্ন ধরনের নৌকা, লঞ্চে করে উৎসব উপভোগ করে। তারা সেস্নাগান ও করতালি দিয়ে নৌকা বাইচকে স্বাগত জানায়। নৌকা বাইচ উপলক্ষে নদী বেষ্টিত মুন্সীগঞ্জের ধলেশ্বরী নদী ছিল উৎসব মুখর। সব বয়সী মানুষই এই আনন্দ উপভোগ করে।

নৌকা বাইচের ৫০ মালস্নার ৪টি গ্রম্নপে প্রথম হয়েছে বাইচ নৌকা সেলামতি এঙ্প্রেস, তুফান এঙ্প্রেস, রাজামিয়া এঙ্প্রেস ও রাঢ়ীখাল এঙ্প্রেস। ২৫ মালস্না গ্রম্নপে প্রথম হয়েছে নৌকা বুলেট এঙ্প্রেস ১। এ ছাড়া ২ মালস্না স্বামী-স্ত্রী গ্রম্নপে প্রথম হয়েছে যাবুমিয়া দম্পতি।

বিকেলে মিরকাদিম বন্দর মাঠে নৌকা বাইচের উদ্বোধন করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য মোঃ মহিউদ্দিন। বাইচ শেষে সন্ধ্যায় মুন্সীগঞ্জ লঞ্চ ঘাটের সামনে বিজয়ীদের মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে পুরস্কার বিতরণ করেন স্থানীয় সাংসদ এম ইদ্রিস আলী। উদ্বোধনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক মোঃ আজিজুল সভাপতিত্ব করেন।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, মুন্সীগঞ্জে নতুন প্রজন্মকে দেশজ সংস্কৃতির সঙ্গে পরিচিত রাখা এবং আবহমান বাংলার এ ঐহিত্যকে ধারণ করার জন্যই ইতিহাস সমৃদ্ধ এই জনপদে নৌকা বাইচের আয়োজন করা হয়েছে।

জনকন্ঠ

——————-

——————–

Leave a Reply