ড. তন্ময়ের বিদায় সংবর্ধনা

রাহমান মনি
২৩ সেপ্টেম্বর শুক্রবার টোকিওর তাবাতা ফুরেআইকানে বাংলাদেশ কমিউনিটি জাপান ড. তন্ময়ের স্বদেশ ফেরা উপলক্ষে এক বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক, রাজনৈতি, ব্যবসায়িক, আঞ্চলিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ বিপুলসংখ্যক প্রবাসী গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। প্রবাসীদের পক্ষ থেকে তন্ময় পরিবারকে বিদায়ী ফুলেল শুভেচ্ছা জানান রেনু আজাদ। এরপর বিভিন্ন ব্যক্তি, সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। ড. তন্ময় পরিবারকে জাপানে তার কাজের নিদর্শনস্বরূপ প্রবাসীদের পক্ষ থেকে তার নাম খচিত একটি ক্রেস্ট উপহার দেয়া হয়। ক্রেস্টটি তুলে দেন মুনশী কে আজাদ।

এরপর প্রবাসীরা সবাই একের পর এক বাংলাদেশ টাইগার্স এবং ড. তন্ময়ের ভূয়ষী প্রশংসা করে দীর্ঘ ১২ বছর একসঙ্গে প্রবাস জীবনের স্মৃতিচারণ করেন এবং তার পরিচালনায় বাংলাদেশ টাইগার্স ডট কম প্রবাসীদের কতটা প্রিয় এবং উপকারী তা তাদের বক্তব্যে ব্যক্ত করেন।

সংবর্ধনার জবাবে ড. তন্ময়ের সহধর্মিণী নুসরাত আনোয়ার নিশি তার অনুভূতি জানিয়ে বলেন, এই পোর্টালটি পরিচালনা করতে গিয়ে তন্ময় যথেষ্ট শ্রম দিতেন এবং এই শ্রম দেয়াকে ঘিরে আমাদের দাম্পত্য জীবনে অনেক মনোমালিন্যতার সৃষ্টিও হয়েছে। অনেক সময় হিংসা হতো পোর্টালটি ঘিরে। মনে হয় এটা বোধহয় আমাদের দুজনের মধ্যকার সময় কেড়ে নিচ্ছে। কিন্তু আজ বলতে দ্বিধা নেই নিজেকে বড় অপরাধী মনে হচ্ছে। আপনাদের ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে আজ মনে হচ্ছে আমার উৎসাহ দেয়া উচিত ছিল এবং আপনাদের আমি কথা দিচ্ছি এখন থেকে আমি আর তন্ময়ের সঙ্গে পোর্টাল নিয়ে হিংসা করব না। সকলের ভালোবাসা যে কি তা আজ আমি বুঝতে পেরেছি। আমি আবেগে আপ্লুত। যদিও সমস্ত কৃতিত্বের দাবিদার একমাত্র তন্ময়।

ড. খুরশিদ শহিদ আলমেহের (তন্ময়) তার অনুভূতি জানিয়ে বলেন, আপনাদের এত ভালোবাসা যে নিজের অজান্তেই পেয়েছি তা আজ আমি উপলব্ধি করতে পারলাম। এখানে উপস্থিত অনেকের সঙ্গেই আমার ব্যক্তিগত পরিচয় নেই। অথচ ভালোবাসার টানে এখানে ছুটে এসেছেন। মনে হচ্ছে আমার দায়বদ্ধতা বহুগুণে বেড়ে গেল এবং যতটা না সম্মানের যোগ্য আমি তার চেয়েও বহুগুণ বেশি সম্মান আপনারা আমাকে দিয়েছেন যা আমি ভাবতেও পারিনি। তবে আমি আপনাদের কথা দিচ্ছি জাপান প্রবাসীদের খবরাখবরসহ পোর্টালটি আরো ভালোভাবে পরিচালনা এবং চালিয়ে নেয়ার চেষ্টা আমি করব। সব শেষে সকলে ড. তন্ময় পরিবারের সম্মানে আয়োজিত নৈশ ভোজে মিলিত হন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জুয়েল আহসান কামরুল।

rahmanmoni@gmail.com

সাপ্তাহিক

Leave a Reply