হাবিব মালয়েশিয়ায় নববধূ রেহান ঢাকায়

বিয়ের দু’দিন পর ১৫ই অক্টোবর কক্সবাজারে স্ত্রী রেহানকে নিয়ে ৩২তম জন্মদিন পালন করেন হাবিব। একান্তে জন্মদিন পালন শেষে কালক্ষেপণ না করে একদিন পরেই নববধূকে সঙ্গে নিয়ে ১৬ই অক্টোবর সকালে কক্সবাজার থেকে ঢাকায় ফিরেন হাবিব। ওঠেন গুলশানের নিজ বাড়িতে। বাবা ফেরদৌস ওয়াহিদ সাধারণত বিক্রমপুরে গ্রামের বাড়িতে থাকলেও গুলশানের এই বাড়িটিতে এতদিন ছিলেন হাবিব ও তার মা। এবার মা-ছেলের সুখের সংসারে যোগ হলো নববধূ রেহান। তবে বিস্ময়কর হলেও এটাই সত্যি, নববধূকে নিজ ঘরে তুলেই কয়েক ঘণ্টার বিরতি নিয়ে রোববার রাতে মালয়েশিয়ার উদ্দেশে উড়াল দেন এই মিউজিক জিনিয়াস।

অথচ কথা ছিল কক্সবাজার থেকে ফিরে মাঝে ৫/৬ দিন বিশ্রাম নিয়ে হানিমুনের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়বেন হাবিব-রেহান। হাবিব জানান, ২৩ অক্টোবর ব্যাংককের নৈসর্গিক লোকেশন পাতায়ায় তারা হানিমুন করতে যাচ্ছেন। ওয়াহিদ পরিবারের কর্তা কিংবা মুখপাত্র হাবিবের পিতা ফেরদৌস ওয়াহিদ বলেন, মালয়েশিয়ার বিষয়টি আমারও জানা ছিল না। ও ঢাকায় ফেরার পর হুট করে বলে আজ আমার মালয়েশিয়া যেতে হবে। স্টুডিওর কিছু জরুরি ইকুইপমেন্টের জন্য। এই বলে ঠিক ঠিক চলে গেল। ফেরদৌস ওয়াহিদ প্রসঙ্গ টেনে আর বলেন, ও আসলে গান অন্তপ্রাণ মানুষ। বিশেষ করে স্টুডিওর কোন ইকুইপমেন্ট কিংবা টেকনোলজি আপগ্রেডের বিষয়ে কোন ছাড় দেয় না। অস্থির হয়ে পড়ে। পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, মালয়েশিয়া থেকে হাবিব দেশে ফিরছেন ২০ তারিখ রাতে। এরপরই সিদ্ধান্ত হবে তার হানিমুনে যাওয়ার দিন-ক্ষণ নিয়ে। তবে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, এখনও হানিমুনের জন্য ২৩শে অক্টোবর চূড়ান্ত রয়েছে। অন্যদিকে ডিসেম্বরের মধ্যেই হাবিব-রেহানের বিবাহোত্তর জমকালো সংবর্ধনার পরিকল্পনা-প্রস্তুতি চলছে। ফেরদৌস ওয়াহিদ বলেন, আমি বিক্রমপুরে বসে বসে এখন দাওয়াতের তালিকা তৈরি করছি।

মানবজমিন

Leave a Reply