সেই প্রেমিক যুগল এখন কারাগারে

মোবাইল ফোনে পরিচয়ের সূত্র ধরে প্রেমের টানে স্বামীর ঘর ছেড়ে যাওয়া উম্মে আছমা ও তার প্রেমিক ডা. জিয়াউল হাসান এখন কারাগারে। গতকাল প্রেমিক যুগল উম্মে আছমার স্বামী মো. কবির উদ্দিনের দায়ের করা মামলায় কিশোরগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. আয়েজ উদ্দিনের আদালতে উপস্থিত হয়ে জামিনের প্রার্থনা করলে আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

মামলার বিবরণ ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে ফিশারি ব্যবসায়ী কবির উদ্দিনের সঙ্গে উম্মে আছমা কিশোরগঞ্জ শহরের হয়বতনগরে নিজেদের বাসায় ঘর-সংসার করছিলেন। বছর তিনেক আগে ডা. মো. জিয়াউল ইসলামের সঙ্গে মোবাইল ফোনে পরিচয় হয় গৃহবধূ আছমার। ডা. জিয়াউল ইসলাম মুন্সীগঞ্জ জেলার গজারিয়া উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের বাসিন্দা মো. আলাউদ্দিন মাস্টারের পুত্র। মোবাইল ফোনে কথা বলতে গিয়ে তাদের মধ্যে সখ্য গড়ে উঠে। মাঝে-মধ্যে স্ত্রীকে মোবাইল ফোনে কথা বলতে দেখে জিজ্ঞেস করলে সে তার বাবার বাড়ির লোকজনের সঙ্গে কথা বলছে বলে এড়িয়ে যেতো। পরিচয়ের এক পর্যায়ে ডা. জিয়াউল ইসলাম উম্মে আছমার সঙ্গে গোপনে প্রায়ই তাদের দেখা-সাক্ষাৎ চলতে থাকে। দেখা-সাক্ষাৎ চলাকালে দু’জনের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ভিডিও কৌশলে ডা. জিয়া তার ল্যাপটপে ধারণ করেন। আছমার সঙ্গে দৈহিক সম্পর্ক গড়ে তুলতে পরে এ ভিডিওচিত্রটি প্রকাশ করে দেয়ার হুমকি দেন তিনি। আছমা বাধ্য হয়ে গত ২৪শে জুলাই কিশোরগঞ্জ শহরের একটি আবাসিক হোটেল কক্ষে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে ভাড়া নিয়ে ডা. জিয়ার সঙ্গে রাত যাপন করেন। বিষয়টি স্বামী কবির উদ্দিন জানতে পেরে আছমাকে চাপ দেন। এ নিয়ে দু’জনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। কবির উদ্দিন বাইরে চলে গেলে ২৫শে জুলাই ১৫ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ ৫ লাখ টাকা নিয়ে ডা. জিয়াউল ইসলামের সঙ্গে পালিয়ে যান। কবির উদ্দিন বহু স্থানে খোঁজাখুঁজির পরও আছমার কোন খোঁজ পাননি। পরে ডা. জিয়ার মোবাইল ফোন থেকেই আছমা জানান যে, তিনি ডা. জিয়াউল ইসলামের সঙ্গে পালিয়ে গেছেন। গৃহবধূর স্বামী কবির উদ্দিন প্রেমের ফাঁদ পেতে প্রতারণার মাধ্যমে তার স্ত্রীকে ফুসলিয়ে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগে মদন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক জিয়াউল ইসলামের নামে মামলা দায়েরের পর আদালত গতকাল তাদের জেলহাজতে প্রেরণ করেছেন।

উল্লেখ্য, এ বিষয়ে গত ১৬ই আগস্ট দৈনিক মানবজমিনে ‘মোবাইল ফোনের পরিচয়ে ঘর ছাড়লেন গৃহবধূ আছমা’ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়।

মানবজমিন

Leave a Reply