জন্মদিনে ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত চাষী নজরুল

জন্মদিনে ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হলেন মুক্তিযুদ্ধের প্রথম চলচ্চিত্র ‘ওরা ১১ জন’-এর নির্মাতা ও একুশে পদকপ্রাপ্ত প্রখ্যাত চলচ্চিত্রকার চাষী নজরুল ইসলাম। গতকাল ছিল দেশবরেণ্য এ চলচ্চিত্রকার ও বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বের ৭১তম জন্মদিন। ১৯৪১ সালের এই দিনে তিনি বিক্রমপুরের শ্রীনগর থানার সমষপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বরাবরের মতো তার এবারের জন্মদিনেও আড়ম্বরপূর্ণ কোনো আয়োজন ছিল না। তবে সকাল থেকেই তার শুভাকাঙ্ক্ষী, বন্ধুবান্ধব, সতীর্থ-শিষ্য ও নানা অঙ্গনের খ্যাতিমান ব্যক্তিত্বরা তার কমলাপুরের জসীম উদ্দীন রোডের বাসায় গিয়ে ফুলেল শুভেচ্ছা আর অকৃত্রিম ভালোবাসায় সিক্ত করেন তাকে। দিনটি তার কাটে বাসায় অভ্যাগতদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় আর নাতিসহ পরিবারের অন্য সদস্যের সঙ্গে গল্প করে। অভ্যাগতদের লুচি, সবজি, চা ও মিষ্টান্ন ইত্যাদি দিয়ে আপ্যায়িত করা হয়।

এবারের জন্মদিনে তাকে অন্যদের মধ্যে শুভেচ্ছা জানান ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ড্যাব) মহাসচিব ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. তারেক শামসুর রেহমান, রাজনীতিবিদ রফিকুল ইসলাম, সঙ্গীত শিল্পী বেবী নাজনীন, মনির খানসহ আরও অনেকে। জন্মদিনের অনুভূতি জানিয়ে নজরুল ইসলাম বলেন, ‘এ বয়সে এখনও সুস্থ-সবল আছি। কাজ করতে পারছি। জীবনে অনেক মানুষের ভালোবাসা পেয়েছি। কর্মজীবনে আমার যে অর্জন, তাতেও আমি ভীষণ খুশি। এজন্য মহান আল্লাহকে শুকরিয়া জানাচ্ছি’। জন্মদিনে যারা তাকে শুভেচ্ছা জানান বক্তব্যে তিনি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। বর্ণাঢ্য জীবনের অধিকারী চাষী নজরুল মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক ও সাহিত্যনির্ভর সর্বাধিক চলচ্চিত্রের নির্মাতা। চলচ্চিত্র শিল্পে তার এ অবদানের জন্য তিনি একুশে পদকসহ পেয়েছেন অসংখ্য জাতীয় পুরস্কার। ২০০৪ সালে তিনি পান একুশে পদক। তিনি ১৯৬১ সালে চলচ্চিত্র পরিচালনা শুরু করেন। খ্যাতিমান চলচ্চিত্র নির্মাতা সৈয়দ মোহাম্মদ আওয়ালের মাধ্যমে তিনি চলচ্চিত্রে আসেন। তিনি চারবার বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি নির্বাচিত হন। সংগ্রাম, হাঙ্গর নদী গ্রেনেড, মেঘের পরে মেঘ, দেবদাস, শুভদা, চন্দ্রনাথ, সুভা, শাস্তি, বিরহ ব্যথা, শিল্পী, হাসন রাজা ইত্যাদি তার নির্মিত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র।

আমার দেশ

Leave a Reply