আড়িয়ল বিলের জমিতে অবৈধ হাউজিং কোম্পানীর বিলবোর্ড

সিরাজদিখানে উত্তেজনা
মোহাম্মদ সেলিম, মুন্সীগঞ্জ থেকে : আড়িয়ল বিলের বিস্তৃর্ণ কৃষি জমির মালিকরা আবারও ফুসে উঠছেন। অবৈধ হাউজিং কোম্পানীর দালালদের অপতৎপরতায় সেখানকার কৃষকদের মাঝে আবারও অস্থিরতা বিরাজ করছে। স্থানীয় জমির মালিকরা জানিয়েছেন, বিলের সিরাজদিখান উপজেলার নিমতলা, কুচিয়ামোড়া, শিকার পুর, হাজীগাও, কাজিশাল মৌজার জমি দখলে নেয়ার জন্য বিভিন্ন হাউজিং কোম্পানীর লেলিয়ে দেয়া দালালরা এলাকায় বিভিন্ন অপতৎপরতা আব্যহত রেখেছে।

সরেজমিন সিরাজদিখানের নিমতলা, কুচিয়ামোড়া ঘুড়ে দেখা যায় আড়িয়ল বিলের কৃষি জমিতে আমিন মোহাম্মদ গ্রুপ, পদ্মা ফিউচার পার্ক, ডেসটিনি গ্রুপ, চেয়ার ফুল সিটি, বিডি হাউজিং, সুখের ঠিকানা, প্রিন্স হাউজিং সহ অসংখ হাউজিং কোম্পানির বিলবোর্ড । জমির মালিকরা জানিয়েছে, ঢাকা শহরের প্রভাবশালী হাউজিং কোম্পানি আমিন মোহাম্মদ গ্রুপের লোকজন স্থানীয় কৃষকদের জমিতে তাদের কোম্পানীর বিলবোর্ড জোড় করে স্থাপন করে। এরপর থেকেই তারা বিলের কৃষি জমির মালিকদের দালাল মারফত খবর দিয়ে জানিয়ে দিচ্ছে বিলের জমি যেহেতু খাস একারণে এসব কৃষি জমি আমিন মোহাম্মদ গ্রুপ লিজ নেবার প্রক্রিয়া চালাচ্ছে। তাই জমিতে চাষ বন্ধ রাখার জন্য কৃষকদের বলে দেয়া হচ্ছে। জমির মালিকরা আক্ষেপ করে বলেছেন, গনপূর্ত প্রতিমন্ত্রী মান্নান খান ও স্থানীয় সংসদ সদস্য সুকুমার রঞ্জন ঘোষের প্রভাব দেখিয়ে এ অবস্থা চালিয়ে যাচ্ছে ভ’মিদস্যুরা। তাদের অপতৎপরতার ব্যাপারে সিরাজদিখান থানায় অভিযোগ করতে গেলেও পুলিশ মামলা পর্যন্ত গ্রহণ করছে না। উল্টো অভিযোগকারীকেই বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করার হুমকি দেয়া হয়। এছাড়া তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছেন, এলাকার গোবিন্দ ভেন্ডার ও বাদল সন্ত্রসী বাহিনী নিয়ে জমির মালিকদের জমির দখল ছেড়েদেবার জন্য চাপ দিচ্ছে।

এব্যাপারে সাংসদ সুকুমার রঞ্জন ঘোষের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, যাতায়ত পথে বিশ্বোরোডের দুই পার্শের কৃষি জমিতে হাউজিং কোম্পানির সাইনবোর্ড চোখে পরে তবে আমি হাউজিং কোম্পানি গুলোকে কোন ভাবেই মদদ দিচ্ছি না স্থানীয় লোকজন আমার কাছে কোন অভিযোগ করেনি তবে বিষয়টি দেখার দায়িত্ব মন্ত্রণালয়ের।

সিরাজদিখান উপজেলার চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন জানিয়েছেন, বছর খানেক আগে স্থানীয় কয়েক ব্যাক্তি হাউজিং কোম্পানি গুলোর কর্মকান্ডের ব্যাপারে অভিযোগ করেছিল। এখনো হাউজিং কোম্পানীগুলো তাদের সাইবোর্ড কৃষি জমিতে রেখেছে।

মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রশাসক আজিজুল আলম জানিয়েছেন, হাউজিং কোম্পানীগুলোকে কৃষি জমিতে সাইন বোর্ড স্থাপনের জন্য মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্য্যালয় থেকে কোন অনুমোদন দেয়া হয়নি।

মুন্সিগঞ্জ নিউজ

Leave a Reply