মেঘনায় বালু উত্তোলন – গজারিয়ায় সংঘর্ষে আহত ১০

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার মেঘনাবক্ষে বালু উত্তোলনকালে গতকাল রোববার সকালে ও আগের রাতে দুদফায় গ্রামবাসী ও ড্রেজার শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। এ সময় গ্রামবাসী ৪টি ড্রেজার ভাঙচুর করেছে। জেলার গজারিয়া উপজেলার কালীপুরা গর্জন-তনু সরকারকান্দি গ্রামের মাঝামাঝি স্থানে মেঘনা নদীতে শনিবার রাত ৯টায় ও গতকাল রোববার সকাল ৮টায় দুদফা ওই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আহত ড্রেজার শ্রমিক শরীফ (২৫), ফয়সাল (২৪), গ্রামবাসী কবীর (২২) ও রাসেলকে (২৩) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। অপর আহতরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে। এ সময় বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী জান্নাতুল কোবরা এন্টারপ্রাইজ, মেসার্স ভাই ভাই, রংধনু এন্টারপ্রাইজ ও মেসার্স আল্লাহর দান নামীয় ৪টি ড্রেজার ভাঙচুর করে।

পুলিশ জানায়, দীর্ঘদিন ধরে কালীপুরা গর্জন ও তনু সরকারকান্দি দুটি গ্রামের মাঝামাঝি স্থানে মেঘনা নদীতে স্থানীয় ইউপি সদস্য মাখন মিয়া ও আবুল কাশেমের নেতৃত্বে ড্রেজারের মাধ্যমে বালু উত্তোলন করে আসছিল। গ্রাম ঘেঁষে বালু উত্তোলন করায় ওই দুটি গ্রামে ভাঙন আতঙ্ক দেখা দেয়। এতে বিক্ষুব্ধ হয়ে শত শত নারী-পুরুষ শনিবার রাত ও গতকাল সকালে হামলা চালালে দুদফা সংঘর্ষ বাঁধে।

ডেসটিনি
=========

গজারিয়ায় মেঘনার তীর ঘেঁষে বালু তোলায় শ্রমিকদের গ্রামবাসীর ধাওয়া

কাজী দীপু, মুন্সীগঞ্জ থেকে: গজারিয়া উপজেলায় মেঘনা-গোমতী সেতুর কাছে মেঘনা নদীর কালিপুরা মৌজায় তীর ঘেঁষে বালু তোলার প্রতিবাদে গতকাল সকালে বিক্ষোভ মিছিল করেছে গ্রামবাসী। অবিলম্বে বালু তোলা বন্ধ করে কালিপুরা গ্রাম রক্ষার দাবি জানিয়েছেন গ্রামবাসী। গত শনিবার রাতে ১০ থেকে ১২টি ড্রেজার দিয়ে নদীর তীর ঘেঁষে বালু কাটার সময় কয়েকশ গ্রামবাসী ধাওয়া দিলে বালু শ্রমিকরা ড্রেজার নিয়ে পালিয়ে যায়।

গ্রামবাসী জানায়, মেঘনা নদীর কালিপুরা মৌজার বালু মহালে ইজারাদার নির্দিষ্ট স্থান অতিক্রম করে ড্রেজার দিয়ে তীর ঘেঁষে বালু উত্তোলন করছে। এতে কৃষি জমিসহ কালিপুরা গ্রামে ভাঙন দেখা দিয়েছে। বালু তোলার প্রতিবাদে এর আগেও গ্রামবাসী কয়েক দফা মিছিল করেছে। গজারিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আসাদুজ্জামান জানান, মহালের ইজারাদার নির্দিষ্ট স্থান অতিক্রম করে তীর ঘেঁষে বালু তোলতে গেলেই গ্রামবাসী বাধা দেয় বলে শুনেছি। বিষয়টি খোঁজখবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আমাদের সময়

Leave a Reply