টেলিফোন গ্রাহকদের হয়রানি ও বিড়ম্বনা চরমে

মোজাম্মেল হোসেন সজল, মুন্সীগঞ্জ: মুন্সীগঞ্জের টেলিফোন গ্রাহকদের নানা হয়রানি ও বিড়ম্বনা পোহাতে হচ্ছে। মুন্সীগঞ্জ ডিজিটাল টেলিফোন এক্্রচেঞ্জের আওতায় এলেও গ্রাহকদের হয়রানি ও বিড়ম্বনা কমেনি। নারায়ণগঞ্জ টেলিফোন অফিসে গিয়ে এখনও গ্রাহকদের টেলিফোন বিল-বকেয়া বিলসহ অন্যান্য লেনদেনর কাজ সারতে হয়। এখানে রেভিনিউ শাখা না থাকায় গ্রাহকদের এ হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে বলে স্থানীয় টেলিফোন অফিসের কর্মকর্তাদের দাবি। জেলায় প্রায় ১০ হাজার টেলিফোন গ্রাহক রয়েছে। গত বছর খানেক আগে মুন্সীগঞ্জে নতুন টেলিফোন এক্্রচেঞ্জ অফিসের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এতে করে বিভাগীয় প্রকৌশলীর পদ সৃস্টি হয়। কিন্ত একদিনের জন্য হলেও বিভাগীয় প্রকৌশলীকে মুন্সীগঞ্জের অফিসে দেখা মিলেনি বলে খোদ স্থানীয় টেলিফোন অফিসের কর্মকর্তারাই অভিযোগ করেন। মুন্সীগঞ্জে নতুন টেলিফোন এক্্রচেঞ্জ অফিসের কার্যক্রম শুরু হলেও গ্রাহকদের গ্রাহক সুবিধা বাড়েনি।

গ্রাহকদের এখনো টেলিফোন লাইন বিকল হয়ে তাকে। মাসের পর মাস নারায়ণগঞ্জ টেলিফোন অফিসের রেভিনিউ শাখা থেকে গ্রাহকদের টেলিফোন বিল পাঠানো হয় না। বিল না পাঠিয়ে বকেয়া বিলের অজুহাতে টেলিফোন লাইন বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়। শহরের মানিকপুর গ্রামের গ্রাহক আনোয়ার হোসেন বাংলা ২৪ বিডি নিউজকে বলেন, ৬-৭মাস হয়েছে তার (টেলিফোন নম্বর ০২-৭৬১২৫৯২) টেলিফোনের বিল পাঠানো হচ্ছে না। ব্যবসায়িক ব্যস্ততা থাকার কারনে নারায়ণগঞ্জে গিয়ে টেলিফোনের বিল আনা সম্ভব হচ্ছে না। এছাড়া তার টেলিফোন লাইনটিও দীর্ঘদিন ধরে বিকল হয়ে রয়েছে। স্থানীয় এক্্রচেঞ্জ অফিসে অভিযোগ দিয়েও সুরাহা হচ্ছে না।

বাংলা ২৪ বিডি নিউজ

Leave a Reply