মুন্সীগঞ্জ থেকে অপহৃত স্কুল ছাত্র লালমোহনে উদ্ধার : গ্রেফতার ৩

মুক্তিপনের টাকা পরিশোধের জাল পেতে মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার বজ্রযোগিনী থেকে অপহৃত স্কুল শিক্ষার্থীকে শামীম মোল্লাকে (১১) শনিবার দিবাগত রাতে ভোলার লালমোহন উপজেলার চরসখিনা গ্রামে উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ ৩ অপহরনকারীকে গ্রেফতার করেছে। অপহৃত স্কুল শিক্ষার্থীর পরিবারের কাছে দাবীকৃত মুক্তিপনের ৪ লাখ টাকা অপহরনকারীদের শর্ত মতে ঢাকার যাত্রাবাড়ি এলাকাস্থ বার্জার কুরিয়ার সার্ভিসের ঠিকানায় পৌছানো হয়েছে জাল পাতা হয় শনিবার রাতে। এরই মধ্য দিয়ে ঘটনার ৪ দিন পর অপহরনের শিকার স্কুল শিক্ষার্থী শামীম মোল্লাকে পুলিশ উদ্ধার করতে সমর্থ হন। এ রিপোর্ট লেখার সময় আজ রোববার বিকেল পৌনে ৬ টার দিকে উদ্ধারকৃত স্কুল শিক্ষার্থী শামীম ও গ্রেফতারকৃত ৩ অপহরনকারীকে নিয়ে ভোলার চরসখিনা গ্রাম থেকে মুন্সীগঞ্জের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে সদর থানা পুলিশের টিম।

মুন্সীগঞ্জ সদর থানা পুলিশ জানায়, একদিকে শনিবার রাতে ঢাকার যাত্রাবাড়ি এলাকার কুরিয়ার সার্ভিসের অফিস সহকারী সোলায়মানকে পুলিশ আটক করে। অন্যদিকে, অপহরনকারীদের চিহ্নিত করতে ভোলার লালমোহন উপজেলার চরসখিনা গ্রামে ওতপেতে থাকে সেখানকার থানা পুলিশের একটি টিম। রাতেই যাত্রাবাড়িতে কুরিয়ার সার্ভিসের অফিস সহকারী সোলায়মানকে আটক করার পর তার ব্যক্তিগত মোবাইল থেকে কল করে ৪ লাখ টাকা পরিশোধ করা হয়েছে বলে অপহরনকারীদের নিশ্চিত করা হয়। এ সময় মোবাইল ফোনের কললিষ্টের সূত্র ধরে অপহরনকারীদের অবস্থান শনাক্ত করে ভোলার লালমোহন থানা পুলিশ। পরে সেখানকার চরসখিনা গ্রামের কামালের বাড়িতে পুলিশ অভিযান চালায়। এ সময় পুলিশ ওই বাড়ি থেকে অপহৃত স্কুল শিক্ষার্থীকে শামীম মোল্লাকে উদ্ধার ও এ ঘটনায় জড়িত নোমান (৩০), কামাল (৪০) ও রিয়াজুলকে (৩৩) গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। উল্লেখ্য, গত বুধবার সকালে বজ্রযোগিনী জে কে উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেনীর শিক্ষার্থী মো: শামীম মোল্লাকে কতিপয় দুস্কৃতকারী অপহরন করে নেয়। পরে ওই রাতে মোবাইল ফোনে পরিবারের কাছে দুস্কৃতকারীরা ৪ লাখ টাকা মুক্তিপন দাবী করে। স্কুল শিক্ষার্থী শামীম বজ্রযোগিনী ইউনিয়নের নাহাপাড়া গ্রামের মো: কুদ্দুস মোল্লার ছেলে।

বাংলা ২৪ বিডি নিউজ

Leave a Reply