মেঘনায় লঞ্চডুবি: মরিচের বস্তার কারণে লাশ উদ্ধার ব্যাহত

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় মেঘনা নদীতে ডুবে যাওয়া লঞ্চে আরও অনেক লাশ রয়েছে বলে জানিয়েছেন উদ্ধারকাজে অংশ নেওয়া ফায়ার সার্ভিসের এক ডুবুরি। ডুবে যাওয়া লঞ্চ থেকে প্রথম লাশ উদ্ধারকারী ডুবুরি আলাউদ্দিন বাংলানিউজকে জানান, লঞ্চের জানালায় মরিচের বস্তা স্তূপ করে রাখার কারণে দুর্ঘটনার সময় অনেকেই চেষ্টা করেও বের হতে পারেননি।

এমনকি দুর্ঘটনার পর লাশ উদ্ধারকাজও ব্যাহত হচ্ছে ওই মরিচের বস্তার কারণে।

ফায়ার সার্ভিসের সদর দপ্তরের ডুবুরি আলাউদ্দিন জানান, বিকেল সাড়ে ৫টা উদ্ধার হওয়া ৩২টি লাশের ৩১টি উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিরা। একটি উদ্ধার করেছে নৌবাহিনী।

উদ্ধারকাজে ফায়ার সার্ভিসের ৪ জন ডুবুরি অংশ নিয়েছেন বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, শরীয়তপুর থেকে ঢাকায় আসার পথে সোমবার দিবাগত রাত ২টায় মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার উত্তর চরমসুরা এলাকায় মেঘনা নদীতে দু’শতাধিক যাত্রী নিয়ে ডুবে যায় লঞ্চ এমভি শরীয়তপুর-১।

রিয়াজ রায়হান, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

Leave a Reply