আউটশাহী ইউনিয়ন পরিষদের সচিবের হাতে সাংবাদিক লাঞ্চিত

ব.ম শামীম: মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ী উপজেলার আউটশাহী ইউনিয়ন ভূমি অফিসে সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে একই ইউনিয়ন পরিষদের সচিবের হাতে লাঞ্চিত হয়েছে ৩ সাংবাদিক। সোমবার উপজেলার আউটাশাহী ভূমি অফিসে আউটশাহী বাবুর বাড়ির গাছকাটা বিরোধের বিষয়ে উক্ত বাড়ির মালিকানা সংক্রান্ত তথ্য জানার জন্য টঙ্গিবাড়ী উপজেলার কর্মরত দৈনিক যায়যায়দিন পত্রিকার টঙ্গিবাড়ী সংবাদদাতা শামীম বেপারী, দৈনিক জনতা পত্রিকার টঙ্গিবাড়ী প্রতিনিধি আব্দুল আল মামুন, বাংলাদেশ সময়ের প্রতিনিধি কাজী আকরাম যায়। এ সময় উক্ত ভূমি অফিসের তহসিলদার এর সাথে উক্ত বিষয়ে আলোচনাকালে আউটশাহী ইউনিয়ন পরিষদের সচিব আঃ বাতেন বাবুর বাড়ির মালিকানা দাবীকারী আসলাম সেখকে নিয়ে তহসিল অফিসে প্রবেশ করে সাংবাদিকদের চেয়ার থেকে উঠে আসলাম সেখ ও তার লোকদের বসতে দিতে বলে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে।

পরে সে সাংবাদিকদের বলে আসলাম সেখের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ করতে হলে আগে তাকে জিজ্ঞাসা করতে হবে। উক্ত বাড়ি বিষয়ে পরবর্তীতে আর কোন তদন্ত কাজে গেলে সে সংবাদিকদের প্রাণ নাশের হুমকী প্রদান করে। এ ব্যাপারে সাংবাদিকরা টঙ্গিবাড়ী থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করেছে।

=======================

টঙ্গিবাড়ি প্রেসক্লাবের আহ্বায়কসহ ৩ সাংবাদিক লাঞ্ছিত

কাজী দীপু: মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ি উপজেলার আউটশাহী ইউনিয়নের ভূমি অফিসে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) সচিবের হাতে তিন সাংবাদিক লাঞ্ছিত হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সোমবার বেলা ১১টার দিকে তারা সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় টঙ্গিবাড়ি প্রেসক্লাবের আহ্বায়ক শামিম ব্যাপারি বাদী হয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) দায়ের করেছেন।

সাংবাদিকরা বাংলানিউজকে জানান, উপজেলার স্থানীয় বাবুর বাড়ির গাছ কাটা বিরোধ ও বাড়ির মালিকানা সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহের জন্য টঙ্গিবাড়ি প্রেসক্লাবের আহ্বায়ক ও দৈনিক যায়যায়দিনের স্থানীয় সংবাদদাতা শামীম ব্যাপারি, দৈনিক জনতার প্রতিনিধি আব্দুল আল মামুন, বাংলাদেশ সময়ের প্রতিনিধি কাজী আকরাম আউটাশাহী ভূমি অফিসে যায়।

ভূমি অফিসের তহসিলদারের সঙ্গে আলোচনাকালে আউটশাহী ইউনিয়ন পরিষদের সচিব আ. বাতেন বাবুর বাড়ির মালিকানা দাবি করা আসলাম শেখকে নিয়ে তহসিল অফিসে প্রবেশ করেন। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের চেয়ার থেকে উঠে আসলাম শেখ ও তার লোকজনদের বসতে দিতে বলে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন।

এ বিষয়ে কিছু জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের প্রাণনাশের হুমকি দেন ওই ইউপি সচিব।

এ প্রসঙ্গে আউটশাহী ইউনিয়ন পরিষদ সচিব আ.বাতেনের সেলফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করেও তার কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

টঙ্গিবাড়ি থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) বিশ্বজিৎ বর্মণ জিডি রুজুর সত্যতা নিশ্চিত করে বাংলানিউজকে জানান, তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

Leave a Reply