মালয়েশিয়ার সঙ্গে স্মারকে পদ্মা সেতু নেই : অর্থমন্ত্রী

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত জানিয়েছেন, মালয়েশিয়ার সঙ্গে যে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) হতে যাচ্ছে তাতে পদ্মা সেতু নির্মাণ প্রকল্প নেই। রোববার পরিকল্পনা কমিশনের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিসহ কয়েকটি কমিটির সঙ্গে প্রাক-বাজেট আলোচনা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

মুহিত বলেন, পদ্মা সেতু বিষয়ে বিশ্বব্যাংকের সঙ্গে এখনো আলোচনা চলছে। মালয়েশিয়ার সঙ্গে এমওইউ হলেও তাতে পদ্মা সেতু প্রকল্পটি নেই। মালয়েশিয়ার সঙ্গে চুক্তিতে দেশের অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প থাকছে। আর মালয়েশিয়ার সঙ্গে এমওইউ করলেই বিশ্বব্যাংকসহ অন্য তিনটি দাতা সংস্থার সঙ্গে সব চুক্তি বাতিল করে দেব তা হবে না। আকস্মিকভাবে বিশ্বব্যাংকের সঙ্গে চুক্তি বাতিল করাও সম্ভব না।

ডেসটিনির বিষয়ে অপর এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, যুবককে যেভাবে আটকানো হয়েছে ডেসটিনিকেও সেইভাবেই আটকানোর চেষ্টা করবো। তবে ডেসটিনির বিরুদ্ধে যাই করি না কেন তা আইন অনুযায়ী করবো।

তবে তিনি আবারো বলেন, এ ধরনের এমএলএম ব্যবসা বিশ্বের অন্য দেশেও রয়েছে।

অর্থমন্ত্রী জানান, প্রাক-বাজেট আলোচনায় অংশ নেওয়া সংসদ সদস্যরা দ্রব্যমূল্য মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রাখা, বিদ্যুৎ সরবরাহ ঠিক রাখা ও রাস্তাঘাটের মেরামতের কথা বলেছেন।

তিনি বলেন, এ ব্যাপারে বলতে গেলে তাকে এক প্রকার হুকুমই দিয়েছেন সংসদ সদস্যরা।

অর্থমন্ত্রী, সংসদ সদস্যরা আগামী বাজেটে কৃষিতে ভর্তুকি এবং অপচয় কমানোর রাখার দাবি জানান। সেই সঙ্গে এই ভর্তুকিকে জাতীয়করণ করার প্রস্তাবও দেওয়া হয়।

তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারের জ্বালানি তেলের দাম বাড়লে দেশেও তা বাড়বে।

সংসদ সদস্যদের পক্ষ থেকে নারী নীতি বাস্তবায়নে পদক্ষেপ নিতে বলা হয়। এছাড়া ব্যাংকিং সেবা প্রসারিত করার কথা বলা হয়। যাতে করে গ্রামের মানুষও এই সুবিধার আওতায় আসে।

সভা সূত্রে জানা গেছে, বিদেশি সহায়তা অনেক বেশি আসায় সংসদ সদস্যরা সন্তোষ প্রকাশ করেন। তবে এই সহায়তা ব্যবহারে সরকারের ব্যর্থতায়ও তারা ক্ষোভ জানান।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

Leave a Reply