আ’লীগ কর্মীদের হামলায় বিএনপি কর্মীর মৃত্যু

কাজী দীপু: মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলায় হোসেন্দী গ্রামে আ’লীগ কর্মীদের হামলায় আহত বিএনপি কর্মী ফারুক মারা গেছেন। মঙ্গলবার সকাল ৮টায় ঢাকার পান্থপথ নিউ মডেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

ফারুক ওই উপজেলার হোসেন্দী গ্রামের বাতেন মিয়ার ছেলে। পুলিশ লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। এদিকে ফারুকের মৃত্যুর খবর এলাকায় পৌঁছলে শোকের ছায়া নেমে আসে।

বর্তমানে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ওই গ্রামে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, রোববার রাত সাড়ে ৭টার দিকে উপজেলার হোসেন্দী গ্রামে আ’লীগ কর্মীরা বিএনপি কর্মীদের ওপর হামলা চালিয়ে বাড়িঘর ভাঙচুর ও লুটপাট করে। এ সময় ফারুকসহ ৭ জন আহত হয়।

এ দিকে এ ঘটনায় তাজুল ইসলাম বাদী হয়ে আ’লীগ কর্মী মনিরুল হক টিটুকে প্রধান আসামি করে আরও ২৫ নেতাকর্মীর নামে গজারিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার প্রেক্ষিতে বেলা সাড়ে ১১ টায় পুলিশ মাহাবুবুল হক নামের এক জনকে গ্রেফতার করেছে।

গজারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহীদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বাংলানিউজকে জানান, মামলার পর আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশ মাঠে নেমেছে। ঘটনার পর থেকে আসামিরা পলাতক থাকায় গ্রেফতারে বিলম্ব হচ্ছে। তবে মাহাবুবুল হক নামের একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গজারিয়া উপজেলা যুবদলের সহ-সভাপতি জাহাঙ্গির হোসেন বাংলানিউজকে জানান, ‘ইউপি নির্বাচন ও জমি বেচাকেনা নিয়ে দ্বন্ধের জের ধরে এ হামলা চালায় আ’লীগ কর্মীরা। এ সময় তারা কয়েক রাউন্ড গুলিবর্ষণ করে আতঙ্কের সৃষ্টি করে।’

উল্লেখ্য, গজারিয়া উপজেলার হোসেন্দী গ্রামে আবুল খায়ের দলের কাছে জমি বেচাকেনা নিয়ে যুবদল নেতা জাহাঙ্গিরের সঙ্গে আ’লীগ নেতা মমিরুল হক টিটুর বিরোধ দেখা দেয়।

এরই জের ধরে টিটুর দল রোববার রাতে অর্তকিত হামলা চালিয়ে ৮ টি বাড়িঘর ভাঙচুর ও লুটপাট করে। এ সময় বাধা দিতে গিয়ে বিএনপি কর্মী ফারুক, শহীদজামানসহ বেশ কয়েকজন মহিলা আহত হয়।

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
================

মুন্সীগঞ্জে আওয়ামীলীগের হামলায় বিএনপি কর্মীর মৃত্যু

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় আওয়ামীলীগ কর্মীদের হামলায় আহত বিএনপি কর্মী ফারুক হোসেন (২৮) মারা গেছে । আজ মঙ্গলবার ভোর ৬ টার দিকে ঢাকার পান্থপথ এলাকার গ্রীন লাইফ হসপিটালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় মাহবুব (২৮) নামে একজনকে আজ মঙ্গলবার ভোরে পুলিশ গ্রেফতার করেছে । দুপুরে আওয়ামীলীগ কর্মী মমিনুল হক টিটুকে প্রধান আসামি করে ২৫ জনের নামে নিহতের ভগ্নিপতি তাজুল ইসলাম বাদী হয়ে গজারিয়া থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছে।এ নিয়ে এলাকায় তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছে ।পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে ।পুলিশ জানায়,গজারিয়া উপজেলার হোসেন্দী গ্রামে জমি বেচাকেনা নিয়ে যুবদল নেতা জাহাঙ্গীর গ্র“পের সঙ্গে আওয়ামীলীগ কর্মী মমিনুল হক টিটু গ্রুপের বিরোধ দেখা দেয়। এর জের ধরে টিটু গ্রুপ রোববার রাত ৮ টার দিকে অর্তকিত হামলা চালিয়ে ৭-৮ টি বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাট করে। এ সময় বাধা দিতে গিয়ে বিএনপি কর্মী ফারুক, শহীদুজামানসহ বেশ কয়েকজন মহিলা আহত হয়।গজারিয়া উপজেলা যুবদলের সহ-সভাপতি ও পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, গত ইউপি নির্বাচনে তার পক্ষে নির্বাচন করায় ও জমি বেচাকেনা নিয়ে দ্বন্দ্বের জের ধরে এ হামলা হামলা চালায় আওয়ামীলীগ কর্মীরা।গজারিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শহীদুল ইসলাম বলেন,আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে । পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে

বাংলা ২৪ বিডি নিউজ
=======================

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় হামালায় যুবক নিহত, গ্রেফতার ১

মোহাম্মদ সেলিম, মুন্সীগঞ্জ থেকে : মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলায় হোসেন্দী গ্রামে হামলায় আহত ফারুক মিয়া (২৭) মঙ্গলবার ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। সে হোসেন্দী গ্রামের বাতেন মিয়ার পুত্র। পুলিশ ময়নাতদন্তের জন্য লাশ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। এদিকে মৃত্যুর খবরে এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। এই ঘটনায় মাহবুবুর রহমান (২৮) নামের এক ব্যক্তিকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

গজারিয়া থানার ওসি শহিদুল ইসলাম জানান, আবুল খায়ের গ্রুপের কাছে জমি বিক্রি করা নিয়ে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে রবিবার রাতে হামলা চালালে ফারুক মিয়া ও তার ভাই শহীদ মিয়া গুরুতর আহত হয়। ধারালো অস্ত্রের আঘাতে ফারুকের মাথায় জখম হয়। তবে ভাই শহীদ মিয়া এখন শঙ্কামুক্ত বলে পারিবারিক সূত্র জানায়।

এই ঘটনায় সোমবার রাতে নিহতের ভগ্নিপতি তাজুল ইসলাম বাদী হয়ে ২৫ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছে।

ওসি জানান, হোসেন্দী গ্রামে আবুল খায়ের গ্রুপের কাছে জমি বেচাকেনা নিয়ে যুবদল নেতা জাহাঙ্গীরের সঙ্গে আ’ লীগ নেতা মমিনুল হক টিটুর বিরোধ দেখা দেয়। প্রথমে টিটো প্রায় ১৫০ একর জমি কিনে দেয়। পরে যুবদল নেতা জাহাঙ্গীর মাধ্যমে রবিবার ১০ একর জমি কেনা হয়। এরই জের ধরে টিটুর দল কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে অর্তকিত হামলায়। মামলায় মমিনুল হক টিটুকে প্রধান আসামি করা হয়েছে। সে স্থানীয় চেয়ারম্যান গজারিয়া উপজেলা ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুল হক মিঠুর বড় ভাই।

মুন্সিগঞ্জ নিউজ

Leave a Reply