৩০ লাখ টাকার জাটকা আটক নিয়ে কোষ্টগার্ডের লুকোচুরি

মোজাম্মেল হোসেন সজল, মুন্সীগঞ্জ: মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার মীরকাদিমে রোববার ভোরে পৃথক তিনটি যাত্রীবোঝাই লঞ্চ থেকে আটক করা জাটকা নিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা লুকোচুরি করেছে কোষ্টগার্ড। লঞ্চ থেকে আটক করা প্রায় ৩ লাখ টাকার জাটকা পাইকারী বাজারে বিক্রেতাদের কাছে কোষ্টগার্ড বিক্রি করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার ভোর ৬ টা থেকে বেলা ১২ টা পর্যন্ত টানা ৬ ঘন্টা ধরে আটক করা জাটকা নিয়ে লুকোচুরি খেলে কোষ্টগার্ড। এরমধ্যে সকালে জেলা সদরের মীরকাদিম নদী বন্দর বাজারে অভিযান চালিয়ে বিক্রিত ১০ মণ জাটকা আটক করেছে স্থানীয় মৎস্য অফিস। আটক করা এ ১০ মন জাটকা কোষ্টগার্ডের পাগলাস্থ ক্যাম্পের পেটি অফিসার মো. শফিউল আলম খাওয়ান জন্য উপহার দিয়েছে বলে দাবি করেছেন ২ মাছ বিক্রেতা। মীরকাদিম বন্দরস্থ পাইকারী মাছ বাজারের ব্যবসায়ী মোশারফ মিয়া জানান, নদী থেকে আটক করা জাটকার মধ্যে ওই ১০ মণ জাটকা কোষ্টগার্ডের অফিসার শফিউল ২ বিক্রেতাকে খাওয়ার জন্য দিয়ে গেছে। আটক করা বিপুল পরিমাণের বাকী জাটকা কোষ্টগার্ড নিয়ে গেছে।

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলা মৎস্য অফিসার রাশেদুজ্জামান জানান, ওই পাইকারী মাছ বাজারে প্রতিদিনি কাক ডাকা ভোরে মাছ বিক্রির ধুম পড়ে। আজ রোববার ভোরে মীরকাদিম লঞ্চ টার্মিনাল এলাকায় ধলেশ্বরী নদীতে একটি যাত্রীবোঝাই লঞ্চ থেকে প্রায় ৩০ লাখ টাকা মূল্যের বিপুল পরিমাণের জাটকা কোষ্টগার্ড আটক করলে-তা উধাও হয়ে যায়। জাটকা আটকের কথা ভোর থেকে বেলা ১১ টা পর্যন্ত বিভিন্ন মিডিয়ার কাছে অস্বীকার করে কোষ্টগার্ড। আটককৃত ওই জাটকা মীরকাদিমের পাইকারী বাজারে বিক্রির করার খবর পেয়ে সেখানে গেলে ২ বিক্রেতার কাছ থেকে অন্তত ১০ মণ জাটকা উদ্ধার করে মৎস্য অফিস।

অন্যদিকে, রোববার বেলা ১২ টার দিকে স্থানীয় সাংবাদিকদের চাপের মুখে কোষ্টগার্ডের অফিসার শফিউল অবশেষে জাটকা আটকের কথা স্বীকার করে বলেন- সেগুলো পাগলায় রয়েছে।

বাংলা ২৪ বিডি নিউজ

Leave a Reply